ইবি প্রতিনিধি

  ২৩ মে, ২০২২

সাত দফা দাবিতে ইবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

ছবি : প্রতিদিনের সংবাদ।

খাবারের দাম কমানো ও মান নিশ্চিত করাসহ বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রী ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখার উদ্যোগে প্রশাসন ভবনের সামনে সাত দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছে। মানববন্ধন শেষে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আব্দুস সালাম বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছেন।

স্মারকলিপিতে তারা বলেন, বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রী একটি প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠন। দুঃখজনক হলেও সত্য, বর্তমানে হল সমূহের ডাইনিং এবং ক্যাম্পাসে অবস্থিত হোটেল সমূহে খাদ্যের মান অত্যন্ত নিম্ন পর্যায়ে পৌঁছিয়েছে। এদিকে প্রশাসনের অনুমতি ব্যতীত হলের ডাইনিং ম্যানেজার ও ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরের হোটেল সমূহের মালিকরা ইচ্ছেমতো খাবারের মূল্য বৃদ্ধি করেছে। এমতাবস্থায় হলের ডাইনিং ও ক্যাম্পাসে অবস্থিত হোটেল সমূহে খাবারের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ও মান নিশ্চিতের দাবিতে সাত দফা দাবি জানাচ্ছি।

তাদের দাবি সমূহ; হলের ডাইনিং সমূহে বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহার করে পূর্ব মূল্য নির্ধারণ করতে হবে, শিক্ষার্থীদের সাথে পরামর্শ ব্যতিরেকে ও প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া হলের ডাইনিং সমূহে প্রায়ই হঠাৎ মূল্যবৃদ্ধি বন্ধ করতে হবে, ক্যাম্পাসে অবস্থিত হোটেল ও হলের ডাইনিং সমূহে পুষ্টিকর খাবার নিশ্চিত করতে হবে, খাবার পরিবেশনের স্থান ও রান্নাঘর পরিচ্ছন্ন রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করতে হবে, হলের ডাইনিং সমূহে ভর্তুকি বৃদ্ধি করতে হবে, ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে অবস্থিত হোটেল সমূহে খাবারের মূল্য প্রশাসন কর্তৃক নির্ধারণ করে মূল্য তালিকা প্রদর্শন বাধ্যতামূলক করতে হবে এবং হলের ডাইনিং সমূহে ও ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরের হোটেল সমূহে খাদ্যের মান ও দাম নিয়ন্ত্রণে বিশেষ মনিটরিং সেল গঠন পূর্বক নিয়মিত তদারকি করতে হবে।

মানববন্ধনে ছাত্র মৈত্রী সভাপতি আব্দুর রউফ বলেন, ক্যাম্পাসে হঠাৎ করে খাদ্যের মূল্যবৃদ্ধি ও নিম্ন মানের খাবার পরিবেশন, সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য হুমকিস্বরূপ। তিনি প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানান, রেশনিং ব্যাবস্থার মাধ্যমে দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে উন্নতমানের খাবার নিশ্চিত করা। কারণ, নিম্ন মানের খাবার খেয়ে কখনো একটি ছাত্র সুস্থ থাকতে পারে না। সুস্থ না থাকলে, তারা গবেষণা বা পড়াশোনায় মনোযোগী হতে পারবে না। সুতরাং, এ বিষয়ে অতিদ্রুত প্রসাশনের হস্তক্ষেপ কামনা করি।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহ সভাপতি আকতার হোসেন আজাদ, সহ-সাধারণ সম্পাদক অজয় কুমার দাস, সাংগঠনিক সম্পাদক মোজাহিদুল ইসলাম মোরশেদ, অর্থ সম্পাদক রিপন রায়, দপ্তর সম্পাদক আশিকুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোতালেব মিয়া প্রমুখ।

এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, তোমাদের এই বিষয়টা যৌক্তিক। আমি প্রভোস্টদের সাথে কথা বলে এর সমাধান করব।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
ইবি,সাত দফা,শিক্ষার্থী,মানববন্ধন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close