বদরুল আলম মজুমদার

  ১৭ জুন, ২০২১

বোট ক্লাব কাণ্ড

বিভিন্ন ক্লাবে অমির নামে কোটি টাকার বিল

অভিনেত্রী পরীমনি ও ব্যবসায়ী নাসিরের সহযোগী অমি

আশুলিয়ায় বোট ক্লাব কাণ্ডে অভিযুক্ত দক্ষিণখানের আশকোনার ব্যবসায়ী নাসিরের অন্যতম সহযোগী তুহিন সিদ্দিকী অমি বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। ঢাকা মহানগর উত্তর যুবদলের সভাপতি এস এম জাহাঙ্গীরের মাধ্যমে যুবদলের রাজনীতিতে হাতেখড়ি। তবে অমির ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানায়, তাদের পরিবার বিএনপি ঘরানার হলেও গত ১০ থেকে ১২ বছর তারা আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গেই ওঠা-বসা করতেন বেশি। সেই সূত্রে দক্ষিণ খানে অমির নিজের তৈরি রিসোর্টে যাতায়াত ছিল আওয়ামী লীগ-বিএনপির শতাধিক নেতার।

অমির বাবা তোফাজ্জল হোসেন এলাকায় একজন দানশীল ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত। এতিমখানা, মসজিদ-মাদ্রাসায় দুহাত খুলে দান-খয়রাতও করেন। তোফাজ্জল একসময় মালয়েশিয়া প্রবাসী ছিলেন। সেখানে থাকা অবস্থায়ই বিদেশে লোক পাঠানো শুরু করেন। ১৯৯৬ সালের পর মালয়েশিয়ায় প্রায় ৮ লাখের মতো শ্রমিক পাঠানো হয়। সেই থেকে ১০-১২টি বড় লাইসেন্সধারীর মধ্যে তোফাজ্জল হোসেন ছিলেন একজন। একসময় কোনোমতে জীবনধারণ করলেও জনশক্তি রপ্তানিতে ভাগ্য ঘুরে যায় তোফাজ্জলের। গত ২০ বছরে এ ব্যবসা করে অনেক বিত্তবশালী হলেও তোফাজ্জল সাদামাটা জীবনযাপন করেন। তবে টাকার গরমে বিপথগামী হয়ে যান অমি।

জানা গেছে, ঢাকার বিভিন্ন ক্লাবে অমির নামে কোটি কোটি টাকার বিল ভাউচার আছে। মূলত ভিআইপিদের পেছনে অমি এ টাকা খরচ করতেন। খরচের সুবাধে তাকে অনেকে ব্যবসায়ী হিসেবে চেনেন। তিনি প্রভাবশালীদের নারীর ব্যবস্থা করে দেন এমন আলোচনাও আছে। রাজধানীর উত্তরার আশকোনাতেই স্থায়ীভাবে বসবাস করে তার পরিবার। অভিনেত্রী পরীমনির পোশাক ডিজাইনার জিমির বন্ধু অমি। ঘটনার দিন অমিই মিথ্যা কথা বলে বোট ক্লাবে নিয়ে যান পরীকে। তিনি কেন তাকে সেখানে নিয়ে গিয়েছিলেন তা এখনো স্পষ্ট নয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, একসময় ঢাকা মহানগর যুবদলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন অমি। অমির বাবা তোফাজ্জল হোসেনও বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। সেই সুবাধে অমিদের ওখানে নিয়মিত যাতায়াত করতেন যুবদল নেতা এস এম জাহাঙ্গীরসহ বিএনপির বেশ কয়েকজন স্থানীয় নেতা।

বিএনপির একটি সূত্র জানায়, এলাকায় তার প্রভাবশালী নেতাদের পদে আনতে বিশাল অঙ্কের বিনিয়োগও করতেন অমি। দক্ষিণ খান থানা বিএনপির সভাপতি সাহাবুদ্দিন ও বিমানবন্দর থানা বিএনপির সভাপতি জুলহাজ মোল্লাকে পদে আনতে প্রায় ৫০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেন যুবনেতা জাহাঙ্গীরের হাত দিয়ে। সেই সঙ্গে অঙ্গ দলেও নেতাদের পদ পাইয়ে দিতে বিশাল অঙ্কের ডোনেশন প্রথা চালু করেন অমি। এ নিয়ে স্থানীয় বিএনপি নেতাদের মধ্যে এক ধরনের ক্ষোভও রয়েছে। যুবদল নেতা জাহাঙ্গীরসহ দক্ষিণ খান ও বিমানবন্দর থানা বিএনপির অধিকাংশ নেতাকর্মীর যাতায়াত ছিল অমির রঙ্গশালায়।

অপরদিকে, গত ১০ থেকে ১২ বছরে দক্ষিণ খান থানা আওয়ামী লীগের অধিকাংশ নেতাদের ডোনার পার্টনার ছিল অমি। স্থানীয় আওয়ামী লীগের একটি সূত্র জানায়, এলাকার সাবেক একজন চেয়ারম্যানের নামের সঙ্গে অমির পিতার নামের মিল থাকায় তাদের মধ্যে বেশ ঘনিষ্ঠতা জন্মে। সে চেয়ারম্যানের আশ্রয়-প্রশ্রয়ে এলাকায় সম্পদ বাড়ায় অমির পরিবার। পরে সাবেক যুবলীগ নেতা মুকুল, তার ঘনিষ্ঠ জাপানি হান্নানসহ অনেকের সঙ্গে পরিচিতি ও লেনদেন বাড়ায় অমি।

সূত্র আরো জানায়, গত দুইটি সিটি নির্বাচনে ৪৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনিসুর রহমান নাইমের পক্ষে প্রকাশ্যে নির্বাচনে নামেন অমি। শোনা যায়, সেই নির্বাচনে টাকা-পয়সার লেনদেনও হয় অমির নেতৃত্বে। সেই থেকে নাইমের পরিবারের সঙ্গে আরো ঘনিষ্ঠতা বাড়ে তোফাজ্জল বা অমি পরিবারের।

সূত্র জানায়, অমি মাধ্যমিকের গণ্ডি পেরোতে পারেননি। এক সময় অমির বাবা তোফাজ্জলের কিছুই ছিল না। অমিদের আশকোনায় দেড় বিঘা জমির ওপর সিঙ্গাপুর ট্রেনিং স্কুল নামে একটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এ ছাড়া আশকোনা হুদা মসজিদ রোডে ৫ কাঠার জমির ওপর রয়েছে আলিশান বাড়ি। এ বাড়ির সংলগ্ন ৫ কাঠা জমি, দক্ষিণখান এলাকায় দেড় বিঘার ওপর সিঙ্গাপুর নামে আরেকটি ট্রেনিং স্কুল, উত্তরখানের হেলান মার্কেটসংলগ্ন বিশাল গেস্ট হাউস, টাঈাইলের করটিয়ার বাইপাসে অট্টালিকা, রেস্টুরেন্ট, মাদ্রাসা, হাসপাতাল ও ঢাকার উত্তরার ৪ নম্বর সেক্টরে দুটি নিজস্ব ফ্ল্যাট রয়েছে। এছাড়া মালয়েশিয়া, দুবাই ও সিঙ্গাপুরের তাদের আলিশান তিনটি ফ্ল্যাট রয়েছে। মালয়েশিয়ার কেএলসিসি টাওয়ারে তার ফ্ল্যাটে যাতায়াত এমন একজন জানান, কেএলসিসি টাওয়ারের ফ্ল্যাটটির দাম বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৩০ কোটির ওপরে।

গোয়েন্দা সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, টার্গেটকৃত নারীদের রাজধানীর বিভিন্ন পার্টি সেন্টারে প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীদের সঙ্গ দিতে নিয়ে যেতেন অমি। অমির নেতৃত্বে চলছে রাজধানীর একাধিক পার্টি সেন্টার। পরীমনি কাণ্ডে অভিযুক্ত নাসিরের সঙ্গে একাধিক ব্যবসা রয়েছে অমির। বিদেশেও অনেক স্থানে যাতায়াত রয়েছে অমির। পরীমনির ঘটনায় অমির উত্তরার বাসা থেকেই নাসির ও তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সেখান থেকে আরও তিন নারীকেও গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পিডিএসও/হেলাল

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
বিল,ঢাকা বোট ক্লাব,তুহিন সিদ্দিকী অমি
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close