মক্কায় তাজুল ইসলাম এমপিকে গণসংবর্ধনা

প্রকাশ : ২০ জুন ২০১৭, ১৪:০৬ | আপডেট : ২০ জুন ২০১৭, ১৫:২২

অনলাইন ডেস্ক

সৌদিআরবের মক্কায় লাকসাম-মনোহরগঞ্জ আওয়ামী ফোরামের উদ্যোগে মো. তাজুল ইসলাম এমপিকে গণসংবর্ধনা  ও ইফতার মাহফিল

কুমিল্লা-৯ লাকসাম-মনোহরগঞ্জ আসনের সাংসদ, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. তাজুল ইসলাম এমপির সম্মানে গণসংবর্ধনা ও ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেছে মক্কা লাকসাম-মনোহরগঞ্জ আওয়ামী ফোরাম। মক্কা আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম-সম্পাদক মনির হোসেন শিমুলের সঞ্চালনায় এতে সভাপতিত্ব করেন মক্কা মহানগর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান সুমন।

অনুষ্ঠানে কোরআন তেলাওয়াত করেন খালেক মুন্সী। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন মক্কা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুজাম্মেল হোসেন। বক্তব্য রাখেন রিয়াদস্থ লাকসাম-মনোহরগঞ্জ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. সোহাগ, সিনিয়র সহ-সভাপতি নজরুল ইসলাম, মক্কা মহানগর যুবলীগের সদস্য তাজুল ইসলাম, মনোহরগঞ্জ স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক সোহাগ হোসেন, লাকসাম স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি মোশারফ হোসেন কাঞ্চন, কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ জয়, জেদ্দা মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের সভাপতি ইউসুফ মাহমুদ ফরাজী, মনোহরগঞ্জ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসেন। 

এতে উপস্থিত ছিলেন রিয়াদস্থ লাকসাম-মনোহরগঞ্জ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মো. আতিক, ক্রীড়া ও সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক সোহেল খান, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক রাশেদুক ইসলাম রিপনসহ মক্কা ও জেদ্দা প্রবাসী আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মো. তাজুল ইসলাম এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিলো একটি উন্নত রাষ্ট্র গড়ার; কিন্তু তাকে হত্যা করে তা রুখে দিয়েছিলো বিপথগামী কিছু মানুষ। জননেত্রী শেখ হাসিনা আবার আওয়ামী লীগের হাল ধরে ক্ষমতায় এসে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করার জন্য ও বাংলাদেশকে একটি উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

তিনি আরও বলেন, আমি দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে লাকসাম-মনোহরগঞ্জের কি পরিমাণ উন্নয়ন করেছি আজকে আপনারাই স্বচক্ষে দেখছেন। স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মাদরাসা, কমিউনিটি ক্লিনিক, রাস্তা, ব্রিজ,  কালভার্ট এবং বিদ্যুৎ খাতে রেকর্ড পরিমাণ উন্নয়ন করেছি।

ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন সম্পর্কে মো. তাজুল ইসলাম এমপি বলেন, যারা আজ ফেসবুকে বড় বড় স্ট্যাটাস দিচ্ছেন, নিজেকে ত্যাগী দাবি করছেন, কোথায় ছিলেন তারা ২০০১, ২০০৮ এবং ২০১৪ সালের নির্বাচনে? কি ছিলো তাদের ভূমিকা? কোথায় ছিলো তাদের বড় বড় লেখা—যখন যুবলীগ নতা শাহআলম ও জাহাঙ্গীরকে হত্যা করা হয়েছিলো? বিগত উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তারা আওয়ামী লীগের প্রার্থীর বিপক্ষে কাজ করেছিলো। তিনি আরও বলেন, দেশে এবং প্রবাসে যারা দলের জন্য কাজ করছেন তাদের মেধা ও যোগ্যতা অনুসারে  মূল্যায়ন করা হবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মো. তাজুল ইসলাম এমপি ও বিশেষ অতিথি মো. জাকির হোসেনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান রিয়াদ, মক্কা ও জেদ্দা প্রবাসী লাকসাম-মনোহরগঞ্জ আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। এ ছাড়াও মক্কা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান সুমনের পক্ষ থেকে মো. তাজুল ইসলাম এমপি, মো. জাকির হোসেন এবং ইশতিয়াক আহমেদ জয়ের হাতে বিশেষ সম্মাননা স্মারক তুলে দেয়া হয়।

পিডিএসও/হেলাল