বিরামপুরের জনবান্ধব এসিল্যান্ড করোনায় আক্রান্ত

প্রকাশ : ০২ আগস্ট ২০২০, ০৯:৫৪ | আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২০, ১০:০৩

বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি

দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহসিয়া তাবাসসুম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সোলায়মান হোসেন মেহেদী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এসিল্যান্ড মুহসিয়া তাবাসসুমের করোনাভাইরাসের উপসর্গ দেখা দিলে শুক্রবার করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো নমুনায় শনিবার রাতে তার রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

তিনি আরো জানান, উপজেলায় ইউএনও পরিমল কুমার সরকার ও পৌর মেয়র লিয়াকত আলী সরকার টুটুলসহ এ পর্যন্ত ১৯৫ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৩ জন।

উল্লেখ্য, বিরামপুরে মুহসিয়া তাবাসসুম সহকারী কমিশনার হিসেবে যোগদান করে কিছুদিনের মধ্যেই তার বিভিন্ন জনকল্যাণমূলক কর্মের মাধ্যমে সাধারন মানুষের নিকট একজন জনবান্ধব সরকারি কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিত লাভ করেন। করোনাভাইরাসের হাত থেকে বিরামপুরবাসীকে সচেতন করার জন্য শুরু থেকেই সরকারের সকল নির্দেশনা বাস্তবায়নে সরাসরি মাঠে নেমে উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ৭টি ইউনিয়নে দিন-রাত ২৪ ঘন্টা কাজ করেছেন তিনি। কখনো সেনাবাহিনীর সাথে কখনো আবার পুলিশ বাহিনী নিয়ে মাঠ পর্যায়ে জনসচেতনতামূলক কাজ করেছেন। কখনো নিজ হাতে মাইকিং করে জনগনকে সামাজিক দুরুত্ব বজায় রাখার ও তাদেরকে ঘরে থাকতে আহবান জানিয়েছেন। বিদেশ ফেরত বিভিন্ন প্রবাসীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে বাধ্য করার জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে নানা পদক্ষেপ গ্রহন করেছেন।

এছাড়া করোনা শনাক্ত ব্যক্তিদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে গভীর রাতেও ওইসব ব্যক্তিকে উদ্ধার করে উপজেলার (মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে) অস্থায়ী আইসোলেশন সেন্টারে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছেন। এসব কাজ করতে তিনি কখনো পিছপা হননি। উপজেলা প্রশাসনের তরুন এই কর্মকর্তা সব সময় করোনা মহামারীর এই সময়েও মাঠ পর্যায়ে বেশি কাজ করেছেন। অন্যদিকে তিনি নিজে উপজেলার কর্মহীন ও অসহায় মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সরকারি ত্রানসামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন। নিজের জীবনকে তুচ্ছ করে বিরামপুরের আপামর জনগনকে সেবা দিতে গিয়ে অবশেষে জনবান্ধব এই সরকারি কর্মকর্তা নিজেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেন।

সর্বাধিক পঠিত