সুলতানের দাম ১৫ লাখ!

প্রকাশ : ১১ জুলাই ২০২০, ১৫:১৪

নালিতাবাড়ী প্রতিনিধি

শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে সুলতানের বসবাস। বাংলদেশে জন্ম হলেও তার আদিবাস কানাডায়। মাত্র আড়াই বছর বয়সে ৫ফুট ৬ইঞ্চি উচ্চতা ও ৯ফুট লম্বা সুলতান নামের এই বিশাল বড় ষাঁড় গরুটিকে দেখতে প্রায়ই বাড়িতে ভীড় করছে উৎসুক জনতা। সামনে কোরবানির ঈদ, তাই প্রস্তত করা করা হচ্ছে সুলতানকে৷

মালিক সুলতানকে বিক্রি করতে দাম হাঁকাচ্ছেন ১৫ লাখ টাকা। নিজ বাাড়তে প্রায় ২৭ মন ওজনের এক কানাডিয়ান জাতের বড় ষাঁড় পালনে করে চমক দেখিয়েছেন রুহুল আমীন। উপজেলার বাঘবেড় ইউনিয়নের রানীগাঁও গ্রামে রুহুল আমীনের বাড়ি। পারিবারিক ও ঘরোয়া পরিবেশে লালন পালন করায় এই গরুটির নাম রাখা হয়েছে সুলতান। গরুর মালিকের দাবি শেরপুর জেলায় এই সুলতানই সবচেয়ে বড় সাইজের গরু। 

রুহুল আমীন জানান, নিজের গাভীতে উন্নতজাতের কানাডা থেকে আমদানি করা কানাডিয়ান বীজ থেকে এই গরুর জন্ম। আর গরুর মালিক নিজে পল্লী পশু চিকিৎসক হওয়ায় তাকে পালন করা হচ্ছে স্বযত্নে। তা ছাড়া সুলতানকে নিয়মিত গরমের সময় চার বার ও শীতের সময় দুই বার গোসল করানো হয়। মালিকের অনুপস্থিতে সুলতানকে আদরযত্নে রাখেন পরিবারের লোকজন। 

বিদেশী জাতের এই ষাড় গরুটি ঘরে রেখেই নিজ সন্তানের মতো লালন পালন করা হচ্ছে। বিশেষ প্রয়োজনে বছরে দুই তিনবার ঘরের বাহির করা হয়। নিয়মিত খড় ভুষি ও বাজার থেকে উন্নত মানের পশুখাদ্য ক্রয় করে দেয়া হয় তাকে। তাতে প্রায় প্রতিদিন ৩শ’ থেকে ৪শ’ টাকা খরচ হয় মালিকের। গরুটি শেরপুর জেলার মাঝে অন্যতম বড় গরু বলে অনেকেই এক নজর দেখার জন্য দুর দুরান্ত থেকে আসেন। 

ইতোমধ্যে কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে ক্রয়ের জন্য ক্রেতারা অনেকেই আসা যাওয়া শুরু করছেন। ন্যায্য মূল্য পেলে হয়ত সুলতানকে এবারের ঈদে বিক্রি করা হবে বলে জানান, রুহুল আমীন। সুলতানের (গরুর) বয়স যখন ১১ মাস তখনই দাম হয়েছিল আড়াই লাখ টাকা। এখন আড়াই বছর বয়স ও ওজনের ওপর ভিত্তিকরে গরুটির বর্তমান বাজার মুল্যে ১৫ লাখ টাকা হাঁকাচ্ছেন গরুর মালিক রুহুল আমীন। ১৫ লাখ টাকা হলে বিক্রি করবেন বলে জানান তিনি।

পিডিএসও/এসএম শামীম
 

সর্বাধিক পঠিত