ঢাকা ও না.গঞ্জ ফেরতদের নিয়ে তানোরে আতঙ্ক

প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল ২০২০, ১৯:৫৮

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি

রাজধানী ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ থেকে গেল কয়েক দিন ধরে রাজশাহীর তানোর উপজেলায় নিজ বাড়িতে ফিরেছেন প্রায় শতাধিক মানুষ। এদের বেশিরভাগ সঙ্গরোধ মানছে না। আবার অনেকে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে একই বাড়িতে স্বাভাবিক বসবাস করছেন।

ফলে এদের কেউ যদি করোনাভাইরাস সংক্রমিত হয়ে থাকেন তাহলে এলাকার মানুষের মাঝে তা ছড়ানোর আশাঙ্কা করছে স্বাস্থ্য বিভাগ। তাই প্রাতিষ্ঠানিক সঙ্গরোধ করার দাবি বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের। ঢাকা-নারায়ণগঞ্জে করোনাভাইরাস সংক্রমণ দেখা দেয়ার কর্মজীবী এসব মানুষ বাড়ি ফিরে এসেছেন বলে তাদের পরিবার নিশ্চিত করেছে।   

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, গেল কয়েক দিন যারা বাইরের জেলা থেকে ফিরে এসেছেন তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সঙ্গরোধ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার  বেলা ২টা পর্যন্ত বিভিন্ন জেলা থেকে ফিরে আসা প্রায় ৯০ জনকে সঙ্গরোধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে সন্দেহভাজন চিহ্নিত করে নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হচ্ছে। তবে তানোর উপজেলায় কারো নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট এখনো করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়নি।

এদিকে গত চার দিনে জেলার পুঠিয়া ও বাগমারা উপজেলায় করোনা রোগী চিহ্নিত হওয়ায় গত ১৪ এপ্রিল মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে পুরো রাজশাহী জেলাকেই লকডাউন (অবরুদ্ধ) ঘোষণা করেন জেলা প্রশাসক (ডিসি) হামিদুল হক। 

১৬ এপ্রিল সারাদিনে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় রাজধানী ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ থেকে আসা মানুষের সঙ্গরোধের বিষয়টি না মানার চিত্র পাওয়া গেছে। সঙ্গরোধের নির্দেশনা অমান্য করে অনেকেই বাড়ির বাইরে বের হচ্ছেন। আবার আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতেও বেড়াতে যাচ্ছেন। এদের মধ্যে কেউ করোনাভাইরাস সংক্রমিত হয়েছেন কি না তা এখনো পরীক্ষা হয়নি।

এসব মানুষের মধ্যে কেউ সংক্রমিত হয়ে থাকলে তার পুরো পরিবার এবং পরবর্তীতে এলাকার মানুষের মাঝে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রোজীয়ারা খাতুন।   

তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাকিবুল হাসান বলেন, ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ বা অন্য জেলা থেকে এসেছেন এমন লোকজনের তালিকা করা হয়েছে। ইতোমধ্যেই থানার পুলিশ ওই সব বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করে তাদের হোম কোয়ারেন্টিন (সঙ্গরোধ) মানতে নিদের্শ দেওয়া হয়েছে। 

এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, সঙ্গরোধ নিশ্চিত না হলে প্রাতিষ্ঠানিক সঙ্গরোধের ব্যবস্থা নিতে আমরা প্রস্তুত।

পিডিএসও/তাজ