প্রশাসনের নজর নেই

ঢাকা ফেরতরা অবাধে ঘুরছে রাণীশংকৈলে

প্রকাশ : ১০ এপ্রিল ২০২০, ১৪:১১

রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি
রাণীশংকৈল উপজেলা শহরে শিবদীঘি তেমাথা, বামে জেড৫০০৪ সড়কের আরম্ভ। ছবি : উইকিপিডিয়া

ঢাকা নারায়ণগঞ্জ সিলেট কুমিল্লা নোয়াখালীসহ জেলার বাইরে থাকা ব্যক্তিরা ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে এসে অবাধে ঘুরাফেরা করছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে  লেখালেখি চলছে। এছাড়াও প্রশাসনের সহযোগিতা নিয়েও তারা প্রশ্ন তুলেছে।

কামাল ডন নামে এক ব্যক্তি তার টাইমলাইনে লিখেছেন—রাণীশংকৈল পৌর শহরের ভান্ডারা রংপুরিয়া মার্কেট গ্রামে তিনজন ব্যক্তি ঢাকা থেকে এসে অবাধে ঘুরাফেরা করছেন।

এছাড়াও উপজেলার রাউতনগর কেওটান নামক এলাকায় বেশ কয়েকজন ব্যক্তি অজ্ঞাত গাড়ি যোগে নারায়ণগঞ্জ থেকে এসে অবাধে ঘুরছেন বলে এ প্রতিবেদকের কাছে অভিযোগ করেছেন একাধিক ব্যক্তি। একইভাবে কাশিপুর ইউপির বলঞ্চা গ্রামে গত ৬ এপ্রিল রুপা গাড়িতে করে নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর থেকে তিন ব্যক্তি এসে অবাধে চলাফেরা করছেন বলে আবু নামে ব্যক্তি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ম্যাসেজ করে জানিয়েছেন। একইভাবে নেকমরদ এলাকার আবু বক্কর সিদ্দিক নামে ব্যক্তি তার ফেসবুকে মন্তব্য করেছেনআমার বাড়ির পাশের কয়েকব্যক্তি ঢাকা থেকে এসেছেন। তবে তিনি হোম কোয়ারান্টাইনে থাকছেন না। প্রশাসনকে জানিয়েও কোনো ব্যবস্থা হয়নি।

যদিও উপজেলা প্রশাসন থেকে বিদেশ ফেরতসহ জেলার বাইরে থাকা আসা ব্যক্তিদের শনাক্ত করে প্রশাসনকে তথ্য প্রেরণের কমিটি রয়েছে। তবে সে কমিটি কাগজে কলমে বলে মনে করছে সচেতনমহল। তারা কোনো ধরনের কাজ করছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ উঠেছে, জেলার বাইরের ফেরতদের নিয়ে প্রশাসন জড়ালোভাবে কোনো ভূমিকা না।

এদিকে সম্প্রতি রুপা নামে নাইটকোচ ও বিচ্ছিন্নভাবে মাইক্রো ট্রাকসহ বিভিন্ন বাহনে জেলার বাইরে থাকা লোকজন রাণীশংকৈলে প্রবেশ করেছে। এদের বেশিরভাগ মানুষের নাম ঠিকানা নেই প্রশাসনের কাছে। তারা বাইরে থেকে এসে কোয়ারান্টাইনে না থেকে অবাধে চলাফেরা করছেও বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমী আফরিদা বলেন, আমরা খবর পেলেই জেলার বাইরের ফেরতদের বিষয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছি। জেলার বাইরে থেকে আসা ব্যক্তিদের শনাক্ত করতে সবার সহযোগিতা কামনা করেছেন তিনি।

পিডিএসও/হেলাল