তাড়াশে সরকারি খাল দখল করে চলছে পুকুর খনন

প্রকাশ : ২৫ মার্চ ২০২০, ১২:৩৩

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি

সারাদেশে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রশাসন যখন ব্যস্ত, সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সিরাজগঞ্জের তাড়াশে প্রবাহমান সরকারি খাল দখল করে এবং ফসলি জমি কেটে পুকুর খননে ব্যাস্ত উপজেলার ওয়াশীন গ্রামের প্রভাবশালী আলহাজ শফিকুল ইসলাম (শফি হাজী) ও তার চাচা নজরুল ইসলাম মন্টু নামের দুই ব্যক্তি।

তাদের পুকুর খননের ফলে পানি প্রবাহের গুরত্বপূর্ণ একটি সরকারি খাল ভরাট হয়ে জলাবদ্ধতায় ৫ হাজার হেক্টর ফসলি জমি অনাবাদী হয়ে পড়ার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

জানা গেছে, তাড়াশ-ভুইঞাগাঁতী রাস্তায় তাড়াশ সদর হতে ৩ কিলোমিটার পূর্ব দিকে ধানকুণ্ঠি ব্রিজ এলাকায় রাস্তার দক্ষিণে সরকারি খাল দখল করে ওই পুকুর খনন করছেন মাধাইনগর ইউনিয়নের ওয়াশীন গ্রামের প্রভাবশালী দুই ব্যক্তি। 
‘জাতীয় ভূমি নীতিমালা ২০০১’ উপেক্ষা করে ফসলি জমিতে পুকুর খনন এবং প্রভাব খাটিয়ে সরকারি খাল দখল করে পুকুর খনন করলেও করোনাভাইরাস প্রতিরোধ নিয়ে ব্যস্ত থাকায় প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে কোনা ব্যবস্থা নিচ্ছে না —এমন অভিযোগ করেন স্থানীয়রা।

এদিকে পানি প্রবাহের ওই গুরুত্বপূর্ণ সরকারি খালটি ভরাট হওয়ায় একটু বৃষ্টি হলেই ও বর্ষা মৌসুমে ধাপ, ওয়াশীন, সেরাজপুর, কাস্তা, বেত্রাশীন, গুয়ারাখী, পৌষার, ধানকুন্ঠিসহ প্রায় ২৫ টি গ্রামের প্রায় ৫ হাজার হেক্টর তিন ফসলি জমিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে অনাবাদী হয়ে পড়ার পাশাপাশি তারা স্থায়ীভাবে আর্থিক ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

ওই ফসলি মাঠের জমির মালিক ধাপ ওয়াশীন গ্রামের কৃষক রোস্তম আলী, খোরশেদ আলম, শহিদুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান, ধানকুণ্ঠি গ্রামের কৃষক ফারুক হোসেনসহ শত শত কৃষকের দাবি, জলাবদ্ধতা থেকে ফসলি জমি রক্ষার্থেই প্রবাহমান জনগুরত্বপূর্ণ ওই সরকারি খালটি দখল মুক্ত রাখতে পুকুর খনন বন্ধ করা জরুরি । 

সরকারি খাল দখল করে পুকুর খনন কাজে ব্যস্ত শফিকুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, অনেকেই তো পুকুর খনন করছে। আমি আমার জমিতে পুকুর খনন করলে সমস্যা কোথায় ? তিনি আরও বলেন, সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের চাহিদা মিটিয়েই পুকুর খনন করছি। যা খুশি লেখেন, আমার কিছুই হবে না।  

এ ব্যাপারে তাড়াশ ইউএনও ইফ্ফাত জাহান বলেন, কোনো প্রভাবশালী ফসলি জমি এবং সরকারি খাল দখল করে পুকুর খনন করতে পারেন না। ওই পুকুর খনন বন্ধে ইতোমধ্যেই নিদের্শনা দেয়া হয়েছে।  দ্রুততম সময়ের মধ্যে খনন কাজ বন্ধ হয়ে যাবে এবং সরকারি খাল দখলমুক্ত হয়ে পানি প্রবাহের পথ উন্মুক্ত করা হবে। 

পিডিএসও/তাজ