খালেদা জিয়ার মুক্তি সম্পূর্ণ আদালতের এখতিয়ার : কাদের

প্রকাশ : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৯:৩৫

টুঙ্গিপাড়া (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়াকে জেলের মধ্যে মেরে ফেলবে— এ রাজনীতি বঙ্গবন্ধু করেন নাই। তার কন্যা শেখ হাসিনাও করেন না। তাকে কষ্ট দিয়ে মারার ইচ্ছা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেই। আমরা প্রতিহিংসার রাজনীতি করি না। খালেদা জিয়াকে জেলে নিয়েছে আদালত। তার বিরুদ্ধে তত্ত্বাবধায়ক সরকার দুর্নীতির মামলা দিয়েছে। আদালত এ মামলার বিচার করছে। তার দুর্নীতির মামলার মুক্তির বিষয়টি সম্পূর্ণ আদালতের এখতিয়ার। সরকার এটি বিবেচনা করতে পারে না। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে  গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

খালেদা জিয়ার মুক্তি সম্পর্কে ওবায়দুল কাদের বলেন, তাকে প্যারলে মুক্তি দেয়ার জন্য পরিবার থেকে বিভিন্নভাবে আবেদন এসেছে। তারা টিভির পর্দায় আবেদন করেন। আমি আজ সকালেও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে খবর নিয়েছি। লিখিত কোনো আবেদন আসেনি। এখন লিখিত আবেদন আসলেও এই আবেদন কারণসহ যুক্তিসঙ্গত হতে হবে। যুক্তিযুক্ত কারণ ছাড়া স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও প্যারল বিবেচনা করতে পারে না। সরকারও বিবেচনা করতে পারে না।

বেগম জিয়ার স্বাস্থ্য সম্পর্কে দলের লোকেরা বলে এক কথা, চিকিৎসকরা বলেন আরেকটা। চিকিৎসকরা বলছেন, তার স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রণে আছে। আর দলের লোকরা তাকে অসুস্থ থেকে অসুস্থ বানিয়েছে। তার চিকিৎসা নিয়ে যতোটা না ভাবছে, তারচেয়ে বেশি তারা রাজনীতি করছে।   

তিনি বলেন, সততা ও মেধার প্রতীক হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর পরিবার। শিক্ষাদীক্ষায় এ পরিবার এগিয়ে। কিভাবে সৎ জীবন যাপন করতে হয় তার উদাহারণ বঙ্গবন্ধুর পরিবার। এ পরিবারের সদস্যদের টাকা পয়সার প্রতি কোনো লোভ নেই। শেখ হাসিনা টুঙ্গিপাড়ায় রাস্তা, ব্রিজ, বিদ্যুৎ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ সবকিছু করেছেন। অন্ধকার টুঙ্গিপাড়াকে আলোয় উদ্ভাসিত করেছেন। টুঙ্গিপাড়া এখন নবআলোকে উদ্ভাসিত। টুঙ্গিপাড়ার প্রতিটি ঘরের একজনকে চাকরি দেয়া হবে। টুঙ্গিপাড়াকে আরো অধুনিকভাবে সাজানো হবে। মানুষের নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধি করা হবে। এজন্য আপনাদের ধৈর্য ধরতে হবে।  আপনারা প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করবেন। 

টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের প্রথম পর্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ, শেখ হেলাল উদ্দিন এমপি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাসিম, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, শেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল এমপি,সাংগঠনিক সম্পাদক মীর্জা আজম ও এস.এম কামাল হোসেন।

টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনের প্রথম পর্বের আলোচনা সভায় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সাহাবুদ্দিন ফরাজী, আনিসুর রহমান, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম.ডি বাবুল রানা, গওহরডাঙ্গা মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ওসামা আমিন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধূরী এমদাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আবুল বশার খায়ের, উপজেলা চেয়ারম্যান সোলায়মান বিশ্বাস, সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায় শেখ আহম্মেদ হোসেন মীর্জা, উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক হাফিজুর রশিদ তারেক সহ আরো অনেকে বক্তব্য রাখেন।

এসময় খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড.সুজিত অধিকারী, গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক এম. বদরুল আলম বদর, আওয়ামী লীগ নেতা শুকুর আহম্মেদ, শেখ তোজাম্মেল হক টুটুল, এমদাদুল হক বিশ্বাস, জেলা যুবলীগের সভাপতি জিএম শিহাবউদ্দিন আজমসহ কেন্দ্রীয়, গোপালগঞ্জ জেলা, টুঙ্গিপাড়া, কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পিডিএসও/তাজ