সুন্দরগঞ্জে যাতায়াতের পথ বন্ধ করায় অবরুদ্ধ ৬ পরিবার

প্রকাশ : ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৯:২৫

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে যাতায়াতের পথ বন্ধ হওয়ায় অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন ৬টি দিনমজুর পরিবারের সদস্যরা। স্কুলগামী শিশু শিক্ষার্থীসহ বৃদ্ধরা পড়েছেন সবচেয়ে বিপদে। 

জানা গেছে, উপজেলার ছাপড়হাটী ইউনিয়নের পূর্ব ছাপড়হাটী গ্রামের মৃত জহির উদ্দিন ব্যাপারীর পুত্র আলম মিয়াসহ ৬টি পরিবারের সদস্যদের বাড়ির পূর্ব পাশে বাঁশের বেড়া ও পশ্চিম পার্শ্বে প্রায় ২০ফুট দৈর্ঘ্য ও ১৫ ফুট প্রস্থ একটি গভীর গর্ত খনন করে যাতায়াতের পথ বন্ধ করে দিয়েছে এলাকার প্রভাবশালী সাবেক মেম্বার আঃ হান্নান মিয়া গংরা।

যাতায়াতের পথ বন্ধ হওয়ায় স্কুলগামী কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীসহ বৃদ্ধরা পড়েছেন চরম বিপদে। গর্ত ভর্তি পানি থাকায় পানিতে পরার ভয়ে তারা যাতায়াত করতে পারছেন না। এমনকি এসব পরিবারের দিনমজুর সদস্যরা তাদের কৃষি কাজসহ হাট-বাজারেও যেতে পারছেন না। 

সরেজমিনে দেখা গেছে, রিক্সাচালক আলম মিয়ার বাড়ির পশ্চিম দিকে যাতায়াতের সরকারি প্রধান রাস্তাটির মুখে সদ্য খনন করা বড় আকারের একটি গর্ত দেখা গেছে।

স্থানীয়দের সাথে কথা হলে তারা এ প্রতিবেদককে বলেন, আলম পেশায় রিক্সাচালক কিন্তু তার ছেলে জিয়াউর রহমান রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) পড়ালেখা করায়  ঈর্ষান্বিত হয়ে সাবেক মেম্বার আঃ হান্নানসহ অন্যান্যরা তাদের বাড়ি উভয় দিকে যাতায়াতের পথ বন্ধ করে দিয়েছেন। এর আগে জিয়াউর রহমান মেধাবী হওয়ায় তাকে দু’টি মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়েছিল।

যাতায়াতের পথ বন্ধ হওয়ায় অসহায় রিক্সাচালক আলম স্থানীয় চেয়ারম্যানের নিকট বারবার অভিযোগ করেও কোনো সুফল পাননি। 

এ ব্যাপারে কথা হলে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান কনক কুমার গোস্বামী জানান, আলমের যাতায়াতের পথ বন্ধ হওয়ার অভিযোগ আমি পেয়েছি। আমি বারবার চেষ্টা করেও সমাধান করতে পারিনি। তারা মীমাংসা মানে না। বিবাদী কি মিমাংসা মানে না- এমন প্রশ্নে তিনি হ্যাঁ বলেন।

পিডিএসও/তাজ