টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ডেঙ্গুতে তরুণের মৃত্যু

টাঙ্গাইলে ডেঙ্গু রোগী ১৮৮ জন

প্রকাশ : ০৮ আগস্ট ২০১৯, ১৭:৪৮

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে আরিফ খন্দকার কাজল (২০) নামে এক তরুণের মৃত্যু হয়েছে।

গত বুধবার রাতে কুমুদিনী হাসপাতালে এম.এম.এ ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। সে উপজেলার উয়ার্শী ইউনিয়নের খৈলসিন্দুর গ্রামের মো. আলম খন্দকারের ছেলে। আরিফ মির্জাপুর সরকারি কলেজের স্নাতক শ্রেণির ছাত্র।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত রোববার প্রচণ্ড জ্বর অনুভব করলে দ্রুত আরিফকে মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। রক্ত পরীক্ষায় ডেঙ্গু রোগ শনাক্ত হলে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসাধীন রাখা হয়। ভর্তির ৩দিন পর বুধবার রাত ১০ টার দিকে অবস্থার অবনতি হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। 

কুমুদিনী হাসপাতপালের পরিচালক ডা. প্রদীপ কুমার রায় জানান, গত ৪ আগস্ট আরিফ ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি হয়। পরে বুধবার সন্ধ্যার দিকে রক্তের প্লাটিলেট রেট কমে অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে। এ অবস্থায় তার রক্তের প্রয়োজন হলে পরিবারকে রক্তের ব্যবস্থা করতে বলা হয়। তবে রক্ত দেওয়ার আগেই আরিফ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।

হাসপাতাল সূত্রে আরও জানা যায়, বর্তমানে কুমুদিনী হাসপাতালে ১৩ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসা নিচ্ছে। এ পর্যন্ত কুমুদিনী হাসপাতালে শতাধিক ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে বলে হাসপাতালের সহকারী জেনারেল ম্যানেজার অনিমেশ ভৌমিক লিটন জানান। 

অন্যদিকে এসএস ১ কিট সংকটের কারণে ৫ দিন ডেঙ্গু রোগ শনাক্ত বন্ধ থাকার পর গত বুধবার রাত থেকে পুনরায় কুমুদিনী হাসপাতালে ডেঙ্গু শনাক্তকরণ পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

এদিকে গত ২৪ ঘন্টায় টাঙ্গাইলের বিভিন্ন হাসপাতালে নতুন করে ২১ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন। এছাড়া টাঙ্গাইলে বিভিন্ন হাসপাতালে এই পর্যন্ত চিকিৎসাধীন ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৮৮ জন। এছাড়া জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে ১৩৮ জন রোগী সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরে গেছেন। আর ১৮ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। 

টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ শরীফ হোসেন খান জানান, টাঙ্গাইলের সরকারি হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গু পরীক্ষার কিট সংকট কেটে গেছে। ইতোমধ্যে সরকারি হাসপাতালগুলোতে প্রয়োজনীয় কিট সরবরাহ করা হয়েছে এবং তা কেনার জন্য অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে।

পিডিএসও/তাজ