হযরত শাহজালালের ৭০০তম ওরস শুরু

লাল সালু মাথায় বেঁধে ভক্ত-আশেকানদের ভিড়

প্রকাশ : ২৩ জুলাই ২০১৯, ১৪:০৭

মহানগর (সিলেট) প্রতিনিধি

সিলেটে হযরত শাহজালাল (রহ.)-এর মাজারে ৭০০তম ওরস শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল পৌনে ১০টায় গিলাফ চড়ানোর মধ্য দিয়ে ওরসের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। বুধবার ভোরে আখেরি মোনাজাত ও শিরণি বিতরণের মধ্য দিয়ে শেষ হবে দুই দিনব্যাপী ওরস।

ওরসকে কেন্দ্র করে হযরত শাহাজালালের মাজার ভক্ত-আশেকানদের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করেছে। জনগণের চলাচলের সুবিধার্তে নগরের বেশ কিছু সড়কে যানচলাচলে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

সকাল সাড়ে ১০টা। লাল সালু মাথায় বেঁধে দলবদ্ধ হয়ে বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে মাজার প্রাঙ্গণের দিকে এগোচ্ছিলেন কয়েকজন ভক্ত আশেকান। এ সময় ‘লালে লাল বাবা শাহজালাল’ ধ্বনিতে মুখর হয় মাজার এলাকা। এভাবে দলে দলে মাজারে আসছেন ভক্ত আশেকানরা। আজ সকাল থেকে গিলাফ চড়ানোর জন্য ভিড় করেছেন ভক্তরা। তবে গত রোববার থেকেই দেশের বিভিন্ন স্থানের ভক্তরা সিলেট আসতে শুরু করেন।

সকাল পৌনে ১০টায় প্রথমে মাজারে গিলাপ চড়ায় শাহজালাল মাজার কর্তৃপক্ষ। সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকেও মাজারে গিলাফ দেওয়া হয়েছে। সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত মাজারে গিলাপ চড়াবেন ভক্ত-আশেকানরা। এরপরই শুরু হবে পশু জবাই। সোমবার বিকেল পর্যন্ত ৪৫টি গরু ও ৯০টি খাসি দান হিসেবে পাওয়া গেছে। রাতে খতমে সফিনা, কোরআনখানি এবং রাত ২টা পর্যন্ত জিকির চলবে। বুধবার ভোর ৩টায় আখেরি মোনাজাত শেষে শিরনি বিতরণের মধ্য দিয়ে দুই দিনব্যাপী ওরসের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি হবে।

মাজার কমিটি সূত্রে জানা যায়, ওরসে আগত অতিথিদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ভক্ত-আশেকানদের সমন্বয়ে দুই হাজারের বেশি স্বেচ্ছাসেবক নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে কাজ করছেন। এছাড়া ওরসে কেউ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাৎক্ষণিক চিকিৎসার জন্য মেডিকেল টিমের পাশাপাশি ফায়ার সার্ভিস, বিদ্যুৎ বিভাগের আলাদা টিম মাজার এলাকায় সার্বক্ষণিক উপস্থিত রয়েছে। এছাড়াও পুলিশ সার্বক্ষণিক নিরাপত্তায় কাজ করে যাচ্ছে।

সিলেট নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (গণমাধ্যম) জেদান আল মুসা বলেন, যেকোনো ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। সার্বিক নিরাপত্তায় সহস্রাধিক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মাঠ পর্যায়ের পুলিশের পাশাপাশি মহানগর পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও তৎপর রয়েছেন। সাদাপোশাকে পুলিশও রয়েছে।

পিডিএসও/হেলাল