ক্লাস করতে না দেওয়ায় শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা, সড়ক অবরোধ

প্রকাশ : ২২ জুলাই ২০১৯, ১২:০২

টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধি

ক্লাস করতে না দেওয়ায় গাজীপুরের টঙ্গীতে এক মাদ্রাসা ছাত্রের আত্মহত্যার খবর নিশ্চিত করেছে পুলিশ। রোববার সন্ধায় উত্তর আউচপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশের উপপুলিশ পরিদর্শক তানভির হোসেন লাশটি উদ্ধার করে গাজীপুর মর্গে প্রেরণ করেন।

নিহতের নাম জোবায়ের হোসেন (১৯)। সে টঙ্গীর তামিরুল মিল্লাত মাদ্রাসার আলিম বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। জোবায়ের দিনাজপুরের বীরগঞ্জ থানার বোগ নগর গ্রামের এনামুল হকের ছেলে।

মাদ্রাসা সূত্রে জানা যায়, গত এপ্রিল মাসে মাদ্রাসার আলিম প্রথম বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেনি জোবায়ের। তবে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ না করায় শ্রেণিশিক্ষক সালমান ফারসি দ্বিতীয় বর্ষের ক্লাস করতে দেননি এ শিক্ষার্থীকে। টানা দুই মাস ক্লাস করতে না পেরে গতকাল মাদ্রাসায় যায় জোবায়ের। পরে শ্রেণিশিক্ষক সালমান তাকে ক্লাস করার অনুমতি না দিয়ে গালিগালাজ ও শারীরিক শাস্তি দেন বলে জানিয়েছেন একাধিক শিক্ষার্থী। পরে সন্ধায় এসআই ভবনের দ্বিতীয় তলায় আইডিয়াল হোস্টেলের নিজ কক্ষে সিলিং-এর সঙ্গে গলায় গামছা পেঁচানো ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করার ঘটনাটি ঘটে।

ঘটনা জানাজানি হলে গতকাল রাত সাড়ে ১২টায় মাদ্রাসার সহপাঠি ও বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের গাজীপুরা সাতাইশ এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকে। প্রায় আধা ঘণ্টার এ অবরোধে যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশের অনুরোধে রাস্তা থেকে অবরোধ তুলে নিয়ে আজ সোমবার দুপুরে ফের কর্মসূচি ঘোষণা করে অবরোধ তুলে নেয় বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা।

যোগাযোগ করা হলে তামিরুল মিল্লাদের তামিল বিভাগের শ্রেণিশিক্ষক সালমান ফারসি বলেন, অনেকদিন যাবত অনুপস্থিত। আমি তাকে কিভাবে বকা-বাধ্য করব এত ছাত্রের মধ্যে খেয়াল রাখা অসম্ভব। আসলে কিছু শিক্ষার্থী যা বলেছে ঘটনাটি সম্পূর্ণ মিথ্যে। আপনি আমাদের হাজিরা খাতা দেখুন—জুবায়ের অনেক দিন ধরে অনুপস্থিত ছিল।

এ বিষয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি হত্যা না আত্মহত্যা তদন্ত সাপেক্ষে বলা যাবে।

পিডিএসও/হেলাল