বর্ষার আত্মহত্যা : এবার বরখাস্ত সেই ওসি

প্রকাশ : ২২ মে ২০১৯, ১৯:৫৮

বিশেষ প্রতিবেদক, রাজশাহী

প্রত্যাহারের একদিন পর সাময়িক বরখাস্ত হয়েছে রাজশাহীর মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হোসেন। স্কুলছাত্রী সুমাইয়া আকতার বর্ষার আত্মহত্যার ঘটনায় প্রশাসনিকভাবে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে তাকে এবার সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এর আগে গত সোমবার বিকেলে ওসি আবুল হোসেনকে রাজশাহী পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয়েছিল। 

এ তথ্য নিশ্চিত করে রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সদর) ইফতে খায়ের আলম বুধবার সন্ধ্যায় প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, গত ১৬ মে স্কুলছাত্রী বর্ষার আত্মহত্যার ঘটনায় প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিতে মোহনপুর থানার ওসি আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠে। পরে পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহিদুল্লাহ অভিযুক্ত ওসি আবুল হোসেনকে তাৎক্ষনিকভাবে প্রত্যাহর করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করেন। একই সাথে বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। পরে মঙ্গলবার ওই কমিটির দাখিলকৃত প্রতিবেদনে ওসি আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। এরপর ঢাকা পুলিশ সদরদপ্তর থেকে প্রেরিত নির্দেশিকাতে ওসি আবুল হোসেনকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ দিয়ে বরিশাল রেঞ্জে সংযুক্ত করেছেন। 

প্রসজ্ঞত, গত ২৩ এপ্রিল প্রাইভেট পড়তে গিয়ে অপহরণের শিকার হন নবম শ্রেণীর ছাত্রী বর্ষা। পরে ওই দিনই বাড়ি থেকে প্রায় ৬ কিলোমিটার দূরে খানপুর বাগবাজার এলাকায় বর্ষার পোশাক পরিবর্তন ও অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। এ ঘটনায় ওইদিন রাতেই প্রতিবেশী বখাটে মুকুলকে মোহনপুর থানা পুলিশ আটক করলেও প্রভাবিত হয়ে পরদিন সকালে অভিযুক্তকে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ ওঠে। শুধু তাই নয়, এ ঘটনায় থানায় মামলা করতে গেলেও বর্ষার পিতাকে টানা চারদিন হয়রানি পুর্বক ঘুরানোসহ পিটিয়ে দাঁত-মুখ ভেঙে দেয়ার হুমকির অভিযোগ উঠে ওসির বিরুদ্ধে। ঘটনাটি নিয়ে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ছাড়াও স্থানীয় প্রশাসনের মধ্যে নানা ধরণের গুজব ছড়ানো হয়। ফলে অপরাধীদের বিচার হওয়া নিয়ে শঙ্কা সৃষ্টির ক্ষোভের কারণেই চিরকুট লিখে উপজেলার বাকশিমুল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী বর্ষা গত ১৬ মে নিজ ঘরে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে। 

পিডিএসও/রি.মা