ফোনে নড়াইলের ডিসিকে মাশরাফি যা বললেন

প্রকাশ : ২০ মে ২০১৯, ১৭:৩৪

অনলাইন ডেস্ক

নড়াইল-২ আসনের এমপি বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান ক্রয়ের আহ্বান জানিয়েছেন। রোববার রাতে নড়াইল জেলা প্রশাসক আনজুমান আরাকে ফোন করে তিনি এ আহ্বান জানান। 

এদিকে মে মাসের তিন সপ্তাহ চলে গেলেও সদর ও লোহাগড়া উপজেলায় সরকারীভাবে এখনও ধান ক্রয় শুরু হয়নি।

ত্রিদেশীয় ক্রিকেট চ্যাম্পিয়ন ট্রফি জয়ের পর শনিবার রাতেই দেশে ফেরেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। দেশে ফিরে বিভিন্ন মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন কৃষকরা ধানের ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। তাদের উৎপাদন খরচও উঠছে না। বিষয়টি জানার পর তিনি রোববার রাতে জেলা প্রশাসক আনজুমান আরাকে ফোন করে সরাসরি যাতে কৃষকদের কাছ থেকে ধান ক্রয় করা হয় সে বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন। কৃষকের উৎপাদিত পণ্য নিয়ে কেউ যেন ছিনিমিনি খেলতে না পারে সে বিষয়ে সতর্ক থাকার কথাও বলেন মাশরাফি। তিনি আরও বলেন, কোনো সিন্ডিকেটের মাধ্যমে ধান ক্রয় করা হচ্ছে এমন তথ্য-প্রমাণ পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সে যেই হোক না কেন, ছাড় দেওয়া হবে না।

জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা মাশরাফির ফোনের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আমরা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকেও চাই কৃষকরা যাতে তাদের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য মূল্য পান।  কোনো অসাধু কৃষক যেন কারো মাধ্যমে ধান বিক্রি না করে সরাসরি খাদ্য গুদামে বিক্রি করে। এ জন্য সবার চান ডিসি।

জেলা খাদ্য কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মনুতোষ কুমার মজুমদার বলেন, এমপির নির্দেশনা আমরা পেয়েছি। প্রকৃত কৃষকের কাছ থেকেই ধান ক্রয় করা হবে। সদর উপজেলায় মঙ্গলবার এবং লোহাগড়া উপজেলায় দু’এক দিনের মধ্যে ধান সংগ্রহ শুরু হবে। কালিয়া উপজেলায় রোববার থেকে ধান ক্রয় শুরু হয়েছে। তিনি জানান, জেলার তিন উপজেলায় এক হাজার ৪৫৯ মে.টন ধান সংগ্রহ করা হবে। প্রতি কেজি ধান ২৬ টাকা করে ক্রয় করা হবে। আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত এ অভিযান চলবে।

এ ছাড়া জেলার ৫৪ জন মিল মালিকের কাছ থেকে প্রতি কেজি সিদ্ধ ৩৬ টাকা  ও আতপ ৩৫ টাকা দরে এ বছর মোট ৪ হাজার ১ শত ৯১ মেট্রিক টন (সিদ্ধ-৩৯০৮ ও আতপ-২৮৩) বোরো চাল সংগ্রহ করা হবে। ৬ মে থেকে চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু হয়েছে।

পিডিএসও/রি.মা