উপজেলা নির্বাচন

আ.লীগের প্রার্থী পরিবর্তনের দাবিতে চকরিয়ায় কলা গাছ রোপন

প্রকাশ : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২০:৫৯

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি
ama ami

কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী পরিবর্তনের দাবিতে কলাগাছ রোপন করে প্রতিবাদ জানিয়েছে দলের একাংশ। রোববার রাতে উপজেলার বিভিন্ন সড়ক ও উপসড়কের দুইপাশে এসব কলাগাছ রোপন করা হয়। এদিন দলের কেন্দ্রিয় কার্যালয় থেকে গিয়াস উদ্দিনকে চকরিয়া উপজেলা পরিষদে দলের প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

এ খবর পৌছার পর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ফজলুল করিম সাঈদীর সমর্থকরা এলাকায় বিক্ষোভ করেন। দাবি জানান প্রার্থী পরিবর্তনের। অন্যথায় নাগরিক কমিটির ব্যানারে ফজলুল করিম চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবেন বলে ঘোষণা দেন তার সমর্থকরা।

চকরিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য উপজেলা নির্বাচনকে সামনে রেখে মাসজুড়ে চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার প্রত্যন্ত জনপদে চষে বেড়িয়েছেন এক ডজন সিনিয়র আওয়ামী লীগ নেতা। নির্বাচনে সকলেই আওয়ামী লীগের দলীয় টিকেট পেতে মরিয়া ছিলেন। তবে চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় তৃণমুলের নেতাকর্মীদের মতামতের ভিত্তিতে চকরিয়া উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে চকরিয়া থেকে কেন্দ্রে নাম পাঠানো হয় তিনজন প্রার্থীর নাম। তারা হলেন চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফাসিয়াখালী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান গিয়াসউদ্দিন চৌধুরী, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কক্সবাজার জেলা পরিষদের সাবেক প্যানেল চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম লিটু, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ক্রীড়া সংগঠক আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী। এছাড়াও নৌকা প্রতীক পেতে কেন্দ্রে যোগাযোগসহ নানাভাবে লবিং করছেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সাবেক ছাত্রনেতা আমিনুর রশিদ দুলাল, আওয়ামী লীগ নেতা নুরে হাবিব তসলিম।

সর্বশেষ রোববার কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ড উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দ্বিতীয় ধাপের দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেন। তাতে চকরিয়া উপজেলায় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গিয়াসউদ্দিন চৌধুরীকে।

নৌকার প্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগ থেকে গিয়াস উদ্দিন চৌধুরীর নাম গণমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পর তাকে প্রত্যাখান করে চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা এলাকায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বঞ্চিত অপর প্রার্থী চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি, শ্রমিক নেতা ও ক্রীড়া সংগঠক ফজলুল করিম সাঈদীর সমর্থনে আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মী ছাড়াও সাধারণ জনগন এবং সমর্থকরা নিজেদের উদ্যোগে কলাগাছ রোপন করেছে।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ নেতা ফজলুল করিম সাঈদী বলেন, রাজনৈতিক জীবনে কোনওদিন দল থেকে বিচ্যুত হইনি। সব সময় সাধারণ মানুষের পাশে থেকে কাজ করেছি। দলের জন্য বার বার জেল-জুলুমের শিকার হয়েছি। তাই তিনি জনগণের অভূতপূর্ব সমর্থনকে কাজে লাগিয়ে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মতামতের ভিত্তিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে লড়ে যাবেন এবং জননেত্রী শেখ হাসিনা ও প্রিয় নেতা জাফর আলম এমপিকে এই উপজেলা উপহার দেবেন।

পিডিএসও/রি.মা