হত্যা নাকি আত্মহত্যা?

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর ২০১৮, ১৭:৫২

মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি
লাকীর ফাইল ছবি

হবিগঞ্জের মাধবপুরের কমলপুরে লাকী আক্তার (২৭) নামে এক মালয়েশিয় প্রবাসীর স্ত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। তবে লাকীর বাবার দাবি, ‘তার মেয়েকে হত্যা করেছে শ্বশুর বাড়ির লোকজন।’

শুক্রবার বিকেলে উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের কমলপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। লাকী আক্তার ওই গ্রামের মালয়েশিয় প্রবাসী ফরিদ মিয়ার স্ত্রী এবং একই গ্রামের ফয়েজ মিয়ার মেয়ে। 

মনতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মুখলেছুর রহমান জানান, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মাধবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চন্দন কুমার চক্রবর্তী জানান, লাকী আক্তারের মৃত্যুর খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তখন লাকীর শ্বশুর বাড়ির লোকজন পুলিশকে বলে, ‘সে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।’ কিন্তু মরদেহটি তখন ঝুলন্ত ছিল না। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

এদিকে লাকীর বাবা ফয়েজ মিয়া জানান, একই গ্রামের ফজলু মিয়ার ছেলে ফরিদ মিয়ার সঙ্গে তার মেয়ের বিয়ে দেন। বিয়ের পর থেকেই স্বামীর পরিবারের লোকজন তার মেয়েকে নানাভাবে হয়রানি করতো। শুক্রবার সকালেও তাদের ঝগড়া হয়। ফয়েজ মিয়ার দাবি, ‘তার মেয়েকে শ্বশুর বাড়ির লোকজন হত্যা করে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দিতে চাইছে।’

পিডিএসও/অপূর্ব