‘সাতক্ষীরার সংখ্যালঘু সম্প্রদায় এখন নিরাপদ’

প্রকাশ : ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৯:১৭

আকরামুল ইসলাম, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

জামায়াত অধ্যুষিত এলাকা সাতক্ষীরাতে এক সময় আতঙ্কে দিনাতিপাত করতো সংখ্যালঘু পরিবারগুলো। ২০১৩-১৪ সালে জামায়াত-শিবিরের তাণ্ডবের ক্ষত আজও সাতক্ষীরার মানুষের হৃদয়ে। সংখ্যালঘুদের ঘরবাড়ি আগুনে পোড়ানো, দোকান পাট ভাংচুর এবং পুরোহিতদের উপর হামলার সেসব স্মৃতি আজও তাড়া করে বেড়ায় এসব মানুষের। 

অশান্ত সাতক্ষীরা এখন শান্ত। তবে রাজনৈতিক উত্তাপের কারনে যেন ফের অশান্ত হয়ে না পড়ে এ নিয়ে উদ্বিগ্ন থাকলেও আসন্ন দুর্গাপূজা উৎসবে কোনও আতঙ্ক নেই এমন দাবি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নেতাদের।

জেলা মন্দির কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক প্রাণ নাথ দাস বলেন, পুলিশ, গোয়েন্দা বিভাগ, ফায়ার সার্ভিস ও এনএসআইসহ প্রশাসনিক সকল বিভাগের কর্মকর্তারা নিয়মিত মন্দিরগুলোতে যাতায়াত অব্যাহত রেখেছেন। এবার জেলা মন্দিরে ২৫১টি প্রতিমা তৈরী হয়েছে। সাতক্ষীরার কোথাও এতগুলো প্রতিমা আর তৈরী করা হয়নি।

ঐতিহ্যবাহী মায়ের মন্দিরের পূজারী শ্যামল চ্যাটার্জী বলেন, হিন্দু সম্প্রদায়ের সব থেকে বড় উৎসব দুর্গাপূজা আসন্ন। আমরা যাতে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পূজা উদযাপন করতে পারি সে লক্ষে পূজা শুরুর সাত দিন আগে থেকেই প্রশাসনিক কর্মকর্তরা মন্দিরে এসে আমাদের সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর নিচ্ছেন। এছাড়া আশপাশের এলাকাতেও নিরাপত্তা ব্যবস্থা অন্য যে কোনও সময়ের থেকে অনেক ভাল। নিরাপত্তার কোন ঘাটতি নেই।

দেবহাটা ফুটবল মাঠ দুর্গা মন্দিরের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জগন্নাথ রায় বলেন, অতীতে সংখ্যালঘু পরিবারের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করত। বর্তমানে সাংসদ ডাঃ আ.ফ.ম রুহুল হকের নেতৃত্বে আমাদের এলাকা জামায়াত-শিবিরমুক্ত হয়েছে। এখন আমরা নিরাপদ বোধ করি। সাতক্ষীরার সংখ্যালঘু সম্প্রদায় অতীতের তুলনায় এখন অনেক নিরাপদ।  

তিনি আরও বলেন, সামনে সংসদ নির্বাচন। নির্বাচনকে ঘিরে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষরা একটু উদ্বিগ্ন থাকলেও বর্তমানে কোনও ঝুঁকি নেই। 

শহরের মুনজিতপুর এলাকার বাসিন্দা বাকাল স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষক জতিস রঞ্জন বলেন, পরিবেশ এখন শান্ত রয়েছে। আসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে সাতক্ষীরার সংখ্যালঘুদের উপর কোনও প্রভাব পড়বে বলে মনে হয় না।

জেলা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের উপদেষ্টা গৌর দত্ত বলেন, সামনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন হলেও পরিবেশ যথেষ্ট শিথিল। আমাদের ধর্মীয় উৎসবে কোনও ধরনের হুমকি নেই। পুলিশ সুপার নিজেই বিষয়টি তদারকি করছেন। শুধু জেলা শহরে নয়, প্রত্যন্ত অঞ্চলেও যেসব জায়গায় দুর্গাপূজা পালন করা হবে সব জায়গাতেই প্রশাসনিক তদারকির ব্যবস্থা রয়েছে।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, পূজা ও নির্বাচনকে সামনে রেখে আমাদের তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে। যে কোনও ধরনের বিশৃঙ্খলা এড়াতে সার্বক্ষণিক ফোর্স মাঠে রয়েছে। তাছাড়া কোনও বিশৃঙ্খলা দেখলে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পিডিএসও/এআই