জমি নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিমা ভাংচুর

প্রকাশ : ০৮ অক্টোবর ২০১৮, ১৯:২৭ | আপডেট : ০৮ অক্টোবর ২০১৮, ১৯:৪৬

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে কালিমন্দিরের ৭টি মূর্তি ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। রোববার রাতের কোনও এক সময় মূর্তিগুলো ভাঙা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন পুরোহিত প্রদীপ চক্রবর্তী। গাজীপুর জেলার শ্রীপুরের কাওরাই ইউনিয়নের সোনাব বটতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মন্দির সংশ্লিষ্টরা জানান, ১৯৫৯ সাল থেকে ২৮ শতাংশ জমিতে দুটি মন্দির পাশাপাশি প্রতিষ্ঠিত। সম্প্রতি মন্দিরের কিছু জায়গা স্থানীয় আবুল হাসেন ফকির নামের এক ব্যক্তি নিজেদের দাবি করে দখল করে। আবুল হাসেন ফকিরের দুই ছেলে সুজন ফকির ও সম্রাট ফকির গত শনিবার দখলকৃত জমিতে গাছ রোপন করছিলেন। এ সময় সুনীল বর্মণ নামে এক পূজারী মন্দিরের জায়গায় গাছ রোপন করতে বাধা দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে পিটিয়ে আহত করা হয়। আহত সুনীল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় প্রদীপ চক্রবর্তী বাদী হয়ে শ্রীপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে সোমবার সকালে এক পূজারী মূর্তি ভাঙা দেখতে পেয়ে পুরোহিতকে খবর দেন। 

মন্দিরের পুরোহিত প্রদীপ চক্রবর্তী বলেন, ‘আমাদের মন্দিরের জমি জবরদখল করে রাখায় বাধা দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে তারা রোববার রাতের কোন এক সময় এই মূর্তিগুলো ভেঙেছে বলে মনে হয়। এ ঘটনাটি থানায় জানানো হয়েছে।’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত আবুল হাসেন ফকিরের সাথে কথা বলতে তার বাড়িতে গেলে সেখানে কাউকে পাওয়া যায়নি। সুজন ও সম্রাটের ব্যক্তিগত মোবাইলটিও বন্ধ পাওয়া যায়।

শ্রীপুর থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ মুমিন সোমবার বিকেল চারটায় টেলিফোনে বলেন, আজ (সোমবার) দুপুরে মন্দির কর্তৃপক্ষ ঘটনাটি আমাদের জানিয়েছেন। আমরা সেখানে যাচ্ছি। 

তিনি আরও জানান, মন্দিরের কিছু জায়গা নিয়ে পার্শ্ববর্তী কয়েকজনের সঙ্গে প্রদীপ চক্রবর্তীর ঝগড়ার ঘটনার অভিযোগ পেয়ে আমি রোববার সেখানে গিয়েছিলাম। মূর্তি ভাংচুরের খবর পেয়ে এখন আমরা আবারও ঘটনাস্থলে যাচ্ছি।

পিডিএসও/এআই