শিবপুরে বাস-মাইক্রো সংঘর্ষ, নিহত ৪

প্রকাশ : ১৪ আগস্ট ২০১৮, ০৯:২৬ | আপডেট : ১৪ আগস্ট ২০১৮, ১৪:৪৮

অনলাইন ডেস্ক

নরসিংদীর শিবপুরে যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে একটি বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে শিবপুরের কোন্দারপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে ১৭ জন। তারা সবাই মাইক্রোবাসের যাত্রী ছিলেন। নরসিংদীর রায়পুরা থেকে বরযাত্রী নিয়ে চাঁদপুরে যাচ্ছিল মাইক্রোবাসটি।

নিহতরা হলেন—রায়পুরা উপজেলার নবোয়ারচর এলাকার সুবল বর্মনের মেয়ে প্রান্তিকা বর্মন, চাঁদপুরের মতলব উপজেলার সাইটনল এলাকার সুজন বর্মন (৩৫), তার মেয়ে স্নিগ্ধা বর্মন (৫) এবং নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের দুপতারা এলাকার নির্মল বর্মনের মেয়ে বৃষ্টি বর্মন (৬)। আহতরা হলেন—রায়পুরার আমজাদ হোসেন (৩৮), রুমা বর্মন (২৫), সুমা বর্মন (২৫), সায়ন্তিকা (৩), ডেমরার দেলোয়ার হোসেন (২৪), নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের সৌরভ বর্মন (১০), শামসুজ্জামান (৩৫), চাঁদপুরের মতলবের নিলতা বর্মণ (৩২), অনিক চন্দ্র বর্মন (১২), বিক্রম চন্দ্র বর্মন (৪০), সজল (৩০), শুভ বর্মন (২৫), ভুলু বর্মন (২৫), রাজু বর্মন (২৫), মুন্সীগঞ্জের সোহাগ (২৮) এবং কিশোরগঞ্জের জমশেদ (৩০)।

বর রাজীব বর্মনের বড় বোন শুভা রানী বর্মণ বলেন, বিভিন্ন এলাকা থেকে মোট ৬০ জন বরযাত্রী বিয়েতে গিয়েছিলাম। সকালে ফেরার পথে প্রথমে তিনটি মাইক্রোবাস ও পরে বর কনেকে নিয়ে একটি মাইক্রোবাস রায়পুরা থেকে বাড়ি ফিরছিল। আর এই মাইক্রোবাসটিই দুর্ঘটনার শিকার হয়।

নরসিংদী জেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শেলী রানী দাম বলেন, হতাহতদের মধ্যে চারজনকে নিহত এবং ১৭ জনকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের সবাইকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

ইটাখোলা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক হাফিজুর রহমান বলেন, মিতালী পরিবহনের যাত্রীবাহী বাসটির সামনে চাকা ফেটে যাওয়ায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মাইক্রোবাসটিকে চাপা দেয়। এতে মাইক্রোবাসের চারজন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে ১৭ জন। এ ঘটনায় ঘাতক বাসটি আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

পিডিএসও/হেলাল