বাসচাপায় স্কুলছাত্র নিহত

রংপুরে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

প্রকাশ : ১২ আগস্ট ২০১৮, ১৮:২৪

রংপুর ব্যুরো

রংপুর নগরীর দর্শনায় বাসচাপায় স্কুলছাত্র নিহতের ঘটনায় পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ১০/১২ টি গাড়িতে ভাঙচুর করে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি, টিয়ারশেল ছুঁড়ে ও লাঠিচার্জ করে। এ সময় পুলিশসহ অন্তত আহত হয়েছেন ১০ জন। সাড়ে ৩ ঘন্টা পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়ে ওঠে। এর আগে বাসচাপায় জিয়ন নিহত হলে ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের শুটকি আড়তের সামনে  রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে স্থানীয়রা। এ সময় জিয়নের মরদেহ নিতে আসা অ্যাম্বুলেন্সও ভাংচুর করে তারা।

জানা যায়, নিহত জিয়ন বদরগঞ্জের লোহানীপাড়া ইউনিয়নের মন্ডলের হাট গ্রামের লোহানীপাড়া দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক জাহিদুল ইসলামের ছেলে এবং নগরীর কালেক্টরেট স্কুল অ্যান্ড কলেজের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, জিয়ন দর্শনার ঘাঘটপাড়া এলাকার মেঘলা ছাত্রাবাসে থেকে পড়াশোনা করতো। সকালে বাইসাইকেল নিয়ে ওই সড়ক দিয়ে যাওয়ার সময় গাইবান্ধা থেকে ছেড়ে আসা রংপুরগামী একটি বাস তাকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় জিয়ন।

এদিকে দুর্ঘটনার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে আশপাশের লোকজন মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে। ফলে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় বিক্ষুব্ধ লোকজন ১০/১২টি গাড়ি ভাংচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ এক রাউন্ড গুলি, দুই রাউন্ড টিয়ারশেল ও লাঠিচার্জ করলে বিক্ষোকারীরা ছত্রভঙ হয়ে পড়ে। পরে বেলা সাড়ে ৩টার দিকে ওই এলাকায় যান চলাচল শুরু হয়।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এ-সার্কেল) সাইফুর রহমান সাইফ জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। যান চলাচল স্বাভাবিক হয়ে উঠেছে। ঘটনাস্থল থেকে নিহত জিয়নের মরদেহ উদ্ধারের পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

পিডিএসও/তাজ