নৈশপ্রহরী খুন : অভিযুক্ত ব্যক্তিকে পুড়িয়ে হত্যা

প্রকাশ : ০৯ আগস্ট ২০১৮, ১৫:১৮ | আপডেট : ০৯ আগস্ট ২০১৮, ১৫:৩৯

অনলাইন ডেস্ক

দিনাজপুরে নৈশ প্রহরী খুনের তিন ঘন্টা পরই সন্দেহভাজন অভিযুক্ত ব্যক্তিকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে স্থানীয় জনতা। বৃহস্পতিবার সকাল আটটার দিকে দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলায় এই ঘটনা ঘটে। নিহত সন্দেহভাজন খুনির নাম রবিউল ইসলাম।

স্থানীয় সূ্ত্রে জানা গেছে, উপজেলার জগদল হাটপুকুর জেলগেট এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে সুরুজ নৈশপ্রহরী ছিলেন। এর পাশাপাশি তিনি ভ্যান চালাতেন। বৃহস্পতিবার ভোরে স্থানীয় মসজিদে ফজরের নামাজ পড়ে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। এ সময় একই এলাকার তারা মিয়ার ছেলে রবিউল তার উপর হামলা করলে ঘটনাস্থলেই মারা যান সুরুজ। এগিয়ে আসলে একই এলাকার একটি মুরগি ফার্মের নৈশ প্রহরী শহিদ এবং তার তিন বছর বয়সী শিশুপুত্র একরামুল হক শামিমকে কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়।

পরে এ ঘটনা জানতে পেরে বিক্ষুব্ধ জনতা গাছ ফেলে এবং আগুন জ্বালিয়ে দিনাজপুর-পঞ্চগড় মহাসড়কে অবরোধ করে রাখেন। সকাল আটটার দিকে ‘ঘাতক’ রবিউলকে কবিরাজহাট এলাকায় আটক করে বেধড়ক পেটানোর পর পুড়িয়ে মারে বিক্ষুব্ধ লোকজন। এছাড়া রবিউলের বাড়িও আগুনে পুড়িয়ে দেয়া হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকিলা পারভীন। তিনি জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। খবর পেয়ে সকাল নয়টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এবং দমকল কর্মীদের সহায়তায় আগুন নিভিয়ে রবিউলের পোড়া মরদেহ উদ্ধার করে।

রবিউল ইসলাম সম্প্রতি সুরুজ মিয়ার ভাতিজা চা দোকানদার বসির উদ্দিনকেও কুপিয়ে হত্যা করেন বলে অভিযোগ আছে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে আরও কয়েকজনকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ আছে। ঘটনার পর থেকে ওই এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

পিডিএসও/তাজ