গৌরীপুরে আ.লীগের ইফতার মাহফিলে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, ভাঙচুর

প্রকাশ : ১২ জুন ২০১৮, ২০:৩৬

রাকিবুল ইসলাম রাকিব, গৌরীপুর

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত ইফতার মাহফিলে দু পক্ষের সংঘর্ষে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, সংঘর্ষ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পৌর শহরের বঙ্গবন্ধু চত্বরে এই ঘটনা ঘটে।

দলীয় নেতা-কর্মীরা জানান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হেলাল উদ্দিনকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দেয়ার জের ধরে এই সংঘর্ষ ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। তবে হেলাল উদ্দিন বলেন, জেলা আওয়ামী লীগ আমাকে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব দেয়ার পর ইফতার মাহফিলে আামি ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করি। আর অনুষ্ঠানে কোনো ভাঙচুর হয়নি। তবে এক দল উশৃঙ্খল যুবক শুরু থেকেই আমাদের অনুষ্ঠানটি পণ্ড করার চেষ্টা চালায়। তাই একটু ঝামেলা হয়েছে। 

স্থানীয় ও দলীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার বিকালে পৌর শহরের বঙ্গবন্ধু চত্বরে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে স্থানীয় সংসদ সদস্য নাজিম উদ্দিন আহমেদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুলসহ দলের স্থানীয় ও জেলার নেতৃবৃন্দ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। ওই অনুষ্ঠানের ব্যানারে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসাবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হেলাল উদ্দিনের নাম থাকায় আওয়ামী লীগের একটি পক্ষ অনুষ্ঠানের শুরু থেকেই ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন। সন্ধ্যায় ইফতারের পূর্ব মুহুর্তে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ সম্পাদক মোর্শেদুজ্জামান সেলিম বক্তব্য শেষ করার পর সাবেক যুবলীগ নেতা নিজাম উদ্দিন বাবুল অনুষ্ঠানের ব্যানারে  ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসাবে হেলাল উদ্দিনের নাম থাকা নিয়ে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে  দেন। এ ঘটনায় বাক-বিতন্ডা শুরু হলে দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ ও দলীয় নেতা-কর্মীরা সংসদ সদস্যসহ আমন্ত্রিত অতিথিদের নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নেয়।

অনুষ্ঠানের অর্ধশতাধিক চেয়ার ভাঙচুর করা হয়। এসময় পুলিশ ও দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হলে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল বক্তব্য দিয়ে অনুষ্ঠান শেষ করেন। পরে দলীয় নেতা-কর্মীরা দোয়া শেষে ইফতার করেন।

নিজাম উদ্দিন বাবুল বলেন, হেলাল উদ্দিন সাহেবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন নিয়ে আমি জেলা নেতৃবৃন্দের কাছে জানতে চেয়েছিলাম। এরপরই অনুষ্ঠানে হট্টগোল শুরু হয়।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিধু ভূষণ দাস বলেন, ইফতার মাহফিলে ভুল বোঝাবুঝির কারণে একটু হট্টগোল হয়েছে। আর হেলাল উদ্দিন সাহেবকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দেয়া  নিয়ে যে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে  সে ব্যাপারে গঠনতন্ত্র না দেখে কোনো মন্তব্য করা যাচ্ছেনা।

গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) তারিকুজ্জামান বলেন, ইফতার মাহফিলে হট্টগোল শুরু হলে পুলিশ দুপক্ষকেই বুঝিয়ে শান্ত করার চেষ্টা চালায়। এঘটনায় থানায় কোনো পক্ষই অভিযোগ করেনি।

পিডিএসও/রিহাব