রাজশাহীতে তরুণীসহ ২ জনের আত্মহত্যা

প্রকাশ : ১৬ মে ২০১৮, ১৯:২৩

রাজশাহী ব্যুরো

রাজশাহীতে এক তরুণী ও এক ব্যক্তি আত্মহত্যা করেছেন। সাথী খাতুন (১৬) নামে ওই তরুণীকে চিকিৎসার জন্য রাজশাহীতে এনেছিলেন তার মা ও ভাই, তার বাড়ি ঝিনাইদহে।অপরদিকে শফিকুল ইসলাম নামের ওই যুবক রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে কর্মরত ছিলেন। শফিকুল গলায় ফাঁস দিয়ে এবং সাথী তিনতলা ভবন থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

শফিকুল রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার মৌগাছি গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে। আর নিহত সাথীর বাড়ি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার চান্দুয়ালি গ্রামে। তার বাবার নাম আবুল বাশার।

নগরীর রাজপাড়া থানার ওসি হাফিজুর রহমান জানান, শফিকুল ইসলাম নগরীর বহরমপুর এলাকায় স্ত্রীকে নিয়ে ভাড়া বাসায় থাকতেন। গতকাল বুধবার দুপুরে তিনি স্বয়নকক্ষে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। খবর পেয়ে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। দাম্পত্য কলহের জের ধরে তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

অন্যদিকে চর্মরোগে আক্রান্ত সাথীকে নগরীর লক্ষ্মীপুর এলাকার ‘মডেল হাসপাতাল’ নামে একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে এনেছিলেন তার মা ও ভাই। দুপুরে তারা হাসপাতালের তিনতলা ভবনের বারান্দায় দাঁড়িয়ে চিকিৎসকের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় সেখান থেকে লাফ দেয় সাথী। এতে গুরুতর আহত হলে তাকে রামেক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাথীকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি জানান, রোগ সহ্য করতে না পেরে এর আগেও সাথী বাড়িতে কয়েকবার আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছিলেন বলে জানা গেছে। সাথী ও শফিকুলের লাশের ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে থানায় দুটি অপমৃত্যুর মামলাও হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

পিডিএসও/তাজ