কালবৈশাখী ঝড়ে নীলফামারীতে নিহত ৭

প্রকাশ : ১১ মে ২০১৮, ১৩:২৭ | আপডেট : ১১ মে ২০১৮, ১৬:৪৪

অনলাইন ডেস্ক

নীলফামারীর জলঢাকা ও ডোমার উপজেলায় বৃহস্পতিবার রাতে প্রবল কালবৈশাখী ঝড়ে মা-মেয়েসহ সাতজন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে জলঢাকায় তিনজন ও ডোমারে চারজন নিহত হয়েছেন। দুই উপজেলায় কয়েকশ হেক্টর আমন ক্ষেতের ক্ষতি হয়েছে। গাছপালা ভেঙে পড়ে বন্ধ রয়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থা। এছাড়াও বিদ্যুৎ সরবরাহও বন্ধ হয়ে পড়েছে।

জলঢাকার ধর্মপাল ইউপি চেয়ারম্যান জামিনুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে কালবৈশাখীতে খুচিমাদা গ্রামের আলমের স্ত্রী সুমাইয়া (৩০) ও তার তিন মাসের কন্যা মনি ও পূর্ব শিমুলবাড়ী গ্রামের মমিনুর রহমানের ছেলে আশিকুর রহমান (২২) নিহত হয়েছেন।

তিনি আরও জানান, ঝড়ে ডিমলা, ডোমার ও জলঢাকা উপজেলার শত শত হেক্টর রোপা আমন ধান ঝড়ে পরছে। সড়কে গাছ ভেঙে পড়ায় যোগযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। সেইসঙ্গে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। জলঢাকা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজার রহমান জানান, ঝড়ে খুচিমাদা গ্রামে মা-মেয়ে ও পূর্ব শিমুলবাড়ী গ্রামে এক ব্যক্তি নিহত হওয়ার খবর পেয়েছি।

অন্যদিকে ডোমার উপজেলায় দুই নারীসহ চারজন নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. উম্মে ফাতিমা। এরা হলেন—গোমনাতি ইউনিয়নের গনি মিয়া (৪০), কেতকিবাড়ী ইউনিয়নের আফিজা রহমান (৪০), ভোগদাবুড়ি ইউনিয়নের খোদেজা বেগম (৫০) এবং জমিরুল ইসলাম (১২)। ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাজমুন নাহার বলেন, ক্ষতিগ্রস্থ এলাকার তালিকা তৈরি করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

​পিডিএসও/হেলাল