‘যত শিক্ষিত, তত মিথ্যাবাদী’

প্রকাশ : ০৮ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ০৮ আগস্ট ২০১৭, ০৯:৫৭

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

‘যত শিক্ষিত তত মিথ্যাবাদী’। কথাটা চমকে দেয়ার মতো। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা অনেক গবেষণার পরে এই তথ্যই জানিয়েছেন। সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, সম্প্রতি ছয় হাজার জনের ওপর একটি জরিপ চালান যুক্তরাজ্যের মিডলসেক্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। গবেষণায় বেরিয়ে আসে স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারীদের থেকে যারা উচ্চমাধ্যমিক পাস করেননি, তাদের সততার মাত্রা প্রায় দ্বিগুণ। কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, উচ্চশিক্ষিত মানুষ মিথ্যা বলার আগে ধরা খাওয়ার হিসাব-নিকাশ করে নেন। তাই তারা মিথ্যায় একপ্রকার পারদর্শী হয়ে ওঠেন।

গবেষণায় দেখা গেছে, মিথ্যার পারদর্শিতা অর্জনে কোনো বয়স-কাল লাগে না। শিক্ষিত হলেই হলো। তবে নারীদের থেকে পুরুষ শিক্ষিতরাই সূক্ষ্মভাবে মিথ্যা বলতে বেশি দক্ষ।

গবেষকরা বলছেন, আপনি যদি স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী হন, তাহলে ধরে নিন আপনার মিথ্যা বলার দক্ষতা সবচেয়ে বেশি। মিথ্যার পারদর্শিতায় এরপরই আছেন স্নাতক ডিগ্রিধারীরা। যারা বিভিন্ন বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ নিয়েছেন, তারা মিথ্যা বলে মোটামুটি চালিয়ে নিতে পারেন। তবে মিথ্যার ক্ষেত্রে একটু সাবধান হতে হবে উচ্চমাধ্যমিক পাস ব্যক্তিদের। কারণ, মিথ্যা বলায় তারা একটু কমই পটু। আর আপনি যদি স্কুল পাস না করে থাকেন, তাহলে আপনাকে এদের মধ্যে সবচেয়ে সৎ বলতেই হবে।

এ বিষয়ে গবেষক ড. ভ্যালেরিও ক্যাপরারো জানান, মিথ্যা বলার আগে মানুষকে এর ফল সম্পর্কে সচেতন হতে হয়। এই সচেতনতার জন্য তাকে বেশ হিসাবনিকাশ করতে হয়, যে দক্ষতা একজন শিক্ষিত মানুষের মধ্যেই বেশি থাকে।

পিডিএসও/হেলাল