বাসের নিচে বিশাল অজগর!

প্রকাশ | ০২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:৫০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

সময় তখন প্রায় মধ্য রাত, ডিপোয় বাস ঢুকিয়ে তাতে সিএনজি ভরার জন্য বাসের নিচে ঢুকেছেন ড্রাইভার। হঠাৎই কানে আসে এক নাগাড়ে মৃদু একটি আওয়াজ। অনেকক্ষণ থেকেই সিএনজি ভরতে ভরতে আওয়াজ শুনতে শুনতে শব্দের উৎস সন্ধানে ভালো করে তল্লাশি শুরু করলেন ড্রাইভার। আর তাতেই যা দেখলেন ভয়ে আত্মারাম খাঁচা ছাড়া হওয়ার জোগাড়। বাসের নিচে নিশ্চিন্তে গুটিয়ে রয়েছে বিশাল আকারের সাপ!

ভারতে দিল্লি শহরে লোকালয়ে হামেশাই সাপ উদ্ধার হওয়া নতুন কোনো ঘটনা নয়। তবে বাসের নিচ থেকে এত বড় অজগর উদ্ধার হওয়ার ঘটনা স্বাভাবিকভাবেই ভীতিপ্রদ। গত বৃহস্পতিবার রাতে ডিটিসি রাজঘাট ডিপোর দুই নম্বর চত্বর থেকে প্রায় ১০ ফুট লম্বা ওই সাপটিকে উদ্ধার করে স্থানীর বন্যপ্রাণী এনজিও এসওএস। ওই রাতেই ডিপো থেকে সাহায্য চেয়ে ফোন যায় এনজিওর কাছে। তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে ১০ ফুটের ওই ভারতীয় রক পাইথনটিকে উদ্ধার করে।

নিজেদের এক বিবৃতিতে ডিপোর কর্মচারী লোকেশ কুমার জানিয়েছেন, ‘ওই ড্রাইভার বাসের নিচ থেকে ক্রমাগত হিসহিস শব্দ পেয়েই বিষয়টা আরো ভালো করে দেখতে যান। তারপরই তার নজরে আসে বিশালাকৃতির ওই সাপ। সঙ্গেসঙ্গেই তিনি আমাদের জানান।’

বর্তমানে ভারতীয় রক পাইথনটি ওই এনজিওর পর্যবেক্ষণেই রয়েছে। শিগগিরই জঙ্গলে মুক্তি দেওয়া হবে সরীসৃপটিকে। বন্যপ্রাণী এসওএস এনজিওর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান কার্যনির্বাহী কর্তা কার্তিক সত্যনারায়ণ বলেন, ‘শহরাঞ্চলে অজগর উদ্ধার হওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। এই বিশেষ অজগরটি সম্ভবত রাজঘাট এলাকার পেছনে ছোট জঙ্গল থেকে বাইরে বেরিয়ে চলে এসেছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের ভালো লাগছে যে সাপ বিষয়ে মানুষের ধারণা বদলেছে। সরীসৃপের প্রতি সংবেদনশীল হয়েছেন বলেই নিজেরা কিছু করে ফেলার আগে তারা আমাদের খবর দিচ্ছেন।’ ভারতীয় রক পাইথন বিষাক্ত নয় কিন্তু তারা কামড়ে ক্ষত তৈরি করতে পারে।

পিডিএসও/হেলাল