২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট

আরো বাড়ছে সামাজিক সুরক্ষার আওতা

প্রকাশ : ০১ জুন ২০২০, ০৯:০৯

শাহজাহান সাজু

অর্থনীতিতে করোনাভাইরাসের প্রভাব মোকাবিলায় আগামী ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে সামাজিক সুরক্ষার আওতা আরো বাড়ানো হচ্ছে। এ প্রেক্ষাপটে চলতি অর্থবছরের বাজেট থেকে আগামী বাজেটে বরাদ্দ বাড়ানো হচ্ছে প্রায় ১ হাজার ৬৩৩ কোটি টাকা। পাশাপাশি সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় আর্থিক সুবিধাভোগীর সংখ্যা ৮১ লাখ থেকে বাড়িয়ে প্রায় ৯৮ লাখে উন্নীত করা হচ্ছে। সেক্ষেত্রে প্রায় ১৭ লাখ আর্থিক উপকারভোগীর সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে। আসছে বাজেটে এই খাতে বরাদ্দের পরিমাণ ৭৪ হাজার ৩৬৭ কোটি টাকা থেকে বাড়িয়ে ৭৬ হাজার কোটি টাকা করা হচ্ছে। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, চলতি বাজেটে সামাজিক সুরক্ষার আওতায় ৮১ লাখ মানুষ বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে সুবিধা পাচ্ছেন। আগামী অর্থবছরে প্রায় ২০ শতাংশ বাড়ানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এতে অতিরিক্ত ১৬ থেকে ১৭ লাখ দরিদ্র মানুষকে এর আওতায় আনা সম্ভব হবে। এর মাধ্যমে প্রায় এক কোটি দরিদ্র জনগোষ্ঠী এই সুবিধার আওতায় চলে আসবে বলে জানা গেছে।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, সাধারণত প্রতি বছর সামাজিক সুরক্ষা খাতে সুবিধাভোগীর সংখ্যা ১০ শতাংশ করে বাড়ানো হয়। করোনাভাইরাসের প্রভাবে আগামী অর্থবছরের মেয়াদে দেশে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বাড়বে বলে আশঙ্কা রয়েছে। তাই আসছে বাজেটে সামাজিক সুরক্ষা খাতে সুবিধাভোগীর সংখ্যা এবার প্রথমবারের মতো ২০ শতাংশ বাড়ানো হচ্ছে। সে হিসাবে চলতি বাজেটে এই খাতে বরাদ্দ ৭৪ হাজার ৩৬৭ কোটি টাকা থেকে ১ হাজার ৬৩৩ কোটি টাকা বাড়িয়ে ৭৬ হাজার কোটি টাকা করা হচ্ছে।

সূত্র আরা জানায়, আসছে বাজেটে সুবিধাভোগীর সংখ্যা ও বরাদ্দ বাড়লেও সুবিধার পরিমাণ বাড়ানো হচ্ছে না। চলতি বাজেটে সুবিধাভোগীরা যে পরিমাণ সহায়তা পেতেন, আগামী অর্থবছরেও একই হারে পাবেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

জানা যায়, সরকারের দারিদ্র্যবিমোচন কৌশলপত্রে ১৪টি সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি চিহ্নিত করা হয়েছে। বর্তমানে বিভিন্ন কর্মসূচির আওতায় সামাজিক নিরাপত্তা খাতে সুবিধাভোগীর সংখ্যা ৮১ লাখ। আগামী বাজেটে ২০ শতাংশ বাড়ানো হলেও এই সংখ্যা আরো ১৬ লাখ ২০ হাজার বেড়ে যাবে। সে হিসাবে বাজেটে সামাজিক সুরক্ষা হাতে সুবিধাভোগীর সংখ্যা হবে ৯৭ লাখ ২০ হাজার জন।

সূত্র জানায়, বর্তমানে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় দুই লাখ মুক্তিযোদ্ধা প্রতি মাসে ১২ হাজার টাকা করে সম্মানি ভাতা পাচ্ছেন। এছাড়াও তারা উৎসব ভাতা ১০ হাজার, নববর্ষ ভাতা হিসেবে দুই হাজার এবং বিজয় দিবস ভাতা পাঁচ হাজার টাকা করে পাচ্ছেন। চলতি বাজেটে এ খাতে বরাদ্দ দুই হাজার ৬০০ কোটি টাকা। চলতি বাজেটে প্রায় ৪৪ লাখ লোক প্রতি মাসে ৫০০ টাকা হারে বয়স্কভাতা পাচ্ছেন। আগামী বাজেটে এই সংখ্যা আরো বাড়ানো হবে। এছাড়াও ১৭ লাখ বিধবা ও স্বামী নিগ্রহের শিকার নারী প্রতি মাসে ৫০০ টাকা হারে ভাতা পাচ্ছেন। আগামী বাজেটে এ খাতেও উপকারভোগীর সংখ্যা বাড়ছে। অন্যদিকে চলতি অর্থবছরে ১০ লাখ অসচ্ছল প্রতিবন্ধীকে প্রতি মাসে ৭০০ টাকা করে ভাতা দেওয়া হচ্ছে। আগামী বাজেটে এদের সংখ্যাও বাড়ানো হবে। বিভিন্ন স্তরে এক লাখ প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী বিভিন্ন হারে ভাতা পাচ্ছেন। আগামী বাজেটে এ সংখ্যাও বাড়ানো হবে।

আওয়ামী লীগ সরকার টানা তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের পর এবার দ্বিতীয়বারের মতো বাজেট দিতে যাচ্ছে। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের এটি দ্বিতীয় বাজেট। আগামী ১১ জুন জাতীয় সংসদে বাজেট উপস্থাপনের কথা রয়েছে। ২০২০-২১ অর্থবছরের এই বাজেটের সম্ভাব্য আকার ধরা হচ্ছে ৫ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৫ কোটি টাকার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) চূড়ান্ত হয়েছে।

পিডিএসও/হেলাল