করোনা : জাহাজ নির্মাণ শিল্পকে বাঁচাতে সরকারের কাছে আর্থিক সহায়তার দাবি

প্রকাশ : ০৫ এপ্রিল ২০২০, ১০:০০

অনলাইন ডেস্ক

সারা বিশ্বে নোভেল করোনা (কোভিড-১৯) ভাইরাস সংক্রমিত হওয়ার প্রভাবে শুধুমাত্র জাহাজ নির্মাণ শিল্পেই ১০ হাজার কোটির টাকার আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হবে বলে দাবি করেছে এসোসিয়েশন অব এক্রপোর্ট ওরিয়েন্টেড অব শিপবিল্ডিং ইন্ডাট্রিস অব বাংলাদেশ (এইওএসআইবি)। এই সংকট থেকে উত্তরণের জন্য সরকারের কাছ থেকে আর্থিক সহায়তা চেয়েছেন এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ।

শনিবার এইওএসআইবি পক্ষ থেকে অর্থমন্ত্রী এবং শিল্পমন্ত্রীর কাছে লিখিত চিঠি দিয়ে এই সহযাগিতা চাওয়া হয়।

এসোসিয়েশন অব এক্রপোর্ট ওরিয়েন্টেড অব শিপবিল্ডিং ইন্ডাট্রিস অব বাংলাদেশ’র সাধারণ সম্পাদক মো. সাখাওয়াত হোসেন স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে আরো উল্লেখ করা হয়, নোভেল করোনা (কোভিড-১৯) ভাইরাস সংক্রমিত হওয়ায় কারণে বাংলাদেশে বিদেশি ক্রেতা না আসায় এবং জাহাজ নির্মাণ শিল্পের কাচামাল আমদানি বন্ধ থাকার কারনে জাহাজ নির্মাণ শিল্পগুলো ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। বর্তমান দেশের শতাধিক জাহাজ নির্মাণ শিল্প বন্ধ রয়েছে। বেকার হয়ে পড়েছে এ শিল্পের সঙ্গে জড়িত লক্ষাধিক শ্রমিক। এ অবস্থা থেকে উত্তোরনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপ এবং এই সেক্টরে বিশেষ অনুদান প্রদানের অনুরোধ জানান জাহাজ নির্মাণ শিল্প মালিকরা।  

দেশের জাহাজ নির্মাণ শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে চিঠিতে চারটি সুপারিশ জানিয়েছেন এসোসিয়েশন অব এক্রপোর্ট ওরিয়েন্টেড অব শিপবিল্ডিং ইন্ডাট্রিস অব বাংলাদেশ’র নেতারা।

সুপারিশগুলো হল- জাহাজ নির্মান শিল্পগুলোর মাসিক বিদ্যুৎ বিল, গ্যাস বিল ও পানির বিল আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত মওকুফ করণ, শ্রমিক ও কর্মচারীদের আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত বেতন বাবদ প্রতিমাসে প্রত্যেক কর্মচারীদের ৫০ হাজার টাকা আর্থিক অনুদান প্রদান, শ্রমিক কর্মচারীদের বেতন ভাতাদির উপর আয়কর মওকুফ করণ, শীপইয়ার্ডগুলো চালু রাখার ক্ষেত্রে দুই শতাংশ সরল সুদে ওয়াকিং ক্যাপিটাল হিসাবে তিন হাজার কোটি টাকা ঋণের ব্যবস্থা করন।