চা উৎপাদনের রেকর্ড ভাঙল

প্রকাশ : ১৩ জানুয়ারি ২০২০, ১০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

উৎপাদনের ক্ষেত্রে ১৬৫ বছরের রেকর্ড ভেঙেছে দেশের চা শিল্প। পরিসংখ্যান বলছে, চা শিল্পের ১৬৫ বছরের ইতিহাসে রেকর্ড পরিমাণ চায়ের উৎপাদন হয়েছে বিদায়ী বছরে। উৎপাদিত চায়ের পরিমাণ ৯৫ মিলিয়ন (সাড়ে ৯ কোটি বা ১ লাখ ৪ হাজার ৭১৯ টন) কেজি।

এটি দেশের চা শিল্পের ইতিহাসে সর্বকালের রেকর্ড। তাই ভারত থেকে অবিলম্বে নিম্নমানের চা আমদানি বন্ধের দাবি জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। সূত্র বলছে, এবার বাংলাদেশ চা বোর্ডের (বিটিবি) উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছিল, ৮ কোটি কেজি।

প্রয়োজনীয় বৃষ্টিপাত, অনুকূল আবহাওয়া, পোকা-মাকড়ের আক্রমণ না থাকা এবং খরার কবলে না পড়ায় ২০১৯ সালের নভেম্বর পর্যন্ত সাড়ে ৯ কোটি কেজির বেশি চা পাতা উৎপাদিত হয়েছে। যা ২০১৮ সালের তুলনায় ১ কোটি ৪০ লাখ (১৪ মিলিয়ন) কেজি বেশি। বাংলাদেশ চা বোর্ডের প্রকল্প উন্নয়ন ইউনিট (পিডিইউ) তথ্যটি তথ্যটি নিশ্চিত করেছে।
 
বিটিবি সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালে উৎপাদিত চায়ের পরিমাণ ৮ কোটি ২১ লাখ ৩০ হাজার (৮২ দশমিক ১৩ মিলিয়ন) কেজি। যা দেশের চা উৎপাদন মৌসুমের (২০১৮) দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রেকর্ড ছিল। এর আগে ২০১৬ সালে আগের সব রেকর্ড ভেঙে ৮ কোটি ৫৫ লাখ (৮৫ দশমিক ৫ মিলিয়ন) কেজি চা পাতা উৎপদিত হয়েছিল।

সূত্র মতে, ২০১৯ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত চায়ের উৎপাদন ছিল ৯৫ মিলিয়ন কেজির ওপরে। এটিই চা উৎপাদনে সবচেয়ে বড় রেকর্ড।

সিলেটের বুরজান চা বাগানের ব্যবস্থাপক মো. কামরুজ্জামান বলেন, আবহাওয়া অনুকূলে থাকাই উৎপাদন বৃদ্ধির বড় কারণ। তাছাড়া প্রতিটি বাগানেই খালি পড়ে থাকা জায়গাগুলো আবাদের আওতায় আনা হয়েছে। আমাদের গুণগতমানও আগের চেয়ে বেড়েছে।

রেকর্ড উৎপাদনের ফলে চা উৎপাদনে বাংলাদেশ হয়েছে স্বয়ংসম্পূর্ণ। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, চা শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে ভারত থেকে নিম্নমানের চা আমদানি বন্ধ করতে হবে।

ফুলতলা চা বাগানের মহাব্যবস্থাপক আবদুস সবুর খান বলেন, ভারতের নিম্নমানের চা যখন এদেশে আসে তথন আমাদের ভালো চা-টাও ওই নিম্নমানের চায়ের সঙ্গে ব্লেন্ডিং করে বাংলাদেশের চায়ের মানও নিম্নমুখী হচ্ছে। যেকোনো মূল্যে চোরাচালান বন্ধ করতে হবে। ১৮৫০ সালের দিকে গড়ে ওঠা চা শিল্প বিকশিত হয়ে এখন ১৬৬টি চা-বাগানে রূপ নিয়েছে।

উল্লেখ্য, বিদেশি কোম্পানি, সরকারি ও ব্যক্তি মালিকানাধীন ছোট বড় মিলিয়ে বাংলাদেশে মোট ১৬২টি চা বাগান গড়ে উঠেছে। এর মধ্যে ৯২টি চা বাগান রয়েছে মৌলভীবাজারে।

পিডিএসও/তাজ