প্রাথমিক শিক্ষার উন্নয়ন : ৭০ কোটি ডলার ঋণ অনুমোদন বিশ্বব্যাংকের

প্রকাশ : ১৯ জুন ২০১৮, ১১:৫২ | আপডেট : ১৯ জুন ২০১৮, ১২:৪৯

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশের প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে ৭০ কোটি ডলার ঋণ অনুমোদন করেছে বিশ্বব্যাংকের বোর্ড সভা। পিইডিপি-৪ কর্মসূচির মাধ্যমে প্রাক-প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের মানসম্পন্ন শিক্ষা কার্যক্রমে এই অর্থ ব্যয় করা হবে।

বিশ্বব্যাংকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, এই কর্মসূচির মাধ্যমে প্রায় ১ কোটি ৮০ লাখ শিক্ষার্থী উপকৃত হবে। কর্মসূচির আওতায় তৃতীয় শ্রেণির বাংলা ও অঙ্ক শেখায় জোর দেয়া হবে। সরকারি স্কুলগুলোতে একটি উন্নত কারিকুলাম প্রণয়ন ও পরীক্ষা পদ্ধতির মাধ্যমে পাঠ্যপুস্তক এবং সহায়ক শিক্ষা ও ডিজিটাল উপকরণ সরবরাহ করা হবে। সেইসঙ্গে প্রাথমিক পর্যায়ের আগে সকল সরকারি স্কুলে একবছর প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা কার্যক্রমে সহায়তা করা হবে। এ বিষয়ে বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর চিমিয়াও ফান উল্লেখ করেছেন, বাংলাদেশ স্বাধীনতাকালীন শিক্ষায় অনেক পিছিয়ে ছিল। বর্তমানে শিক্ষায় উল্লেখযোগ্য উন্নতি করেছে। এখন প্রায় সবশিশুই স্কুলে যাচ্ছে এবং প্রতি দশজনের আটজন প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এই কর্মসূচির মাধ্যমে শিক্ষার বাইরে রয়েছে এমন ১০ লাখ শিশুকে আন্তর্জাতিক কারিকুলাম এবং সমন্বিত শিক্ষা কার্যক্রমের আওতায় নিয়ে আসা হবে। এছাড়া ৯৫ হাজার শ্রেণিকক্ষ, শিক্ষক রুম তৈরিসহ মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম স্থাপন করা হবে। কর্মসূচিতে মেয়ে শিক্ষার্থী ও ও নারী শিক্ষকদের বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে ৮০ হাজার পানি ও স্যানিটেশন ব্লক তৈরি এবং ১৫ হাজার নিরাপদ স্থাপনা করা হবে। বিশ্বব্যাংকের দেয়া ঋণ ৬ বছরের রেয়াতকালসহ ৩৮ বছরে পরিশোধ করতে হবে। এরজন্য শূন্য দশমিক ৭৫ শতাংশ সেবা খরচ দিতে হবে।

পিডিএসও/হেলাল