ব্যাংক খাতের অনিয়মে টিআইবির উদ্বেগ

প্রকাশ : ১০ জুন ২০১৮, ২১:২৯

অনলাইন ডেস্ক

বাজেটে সরকারি আয় বৃদ্ধিতে বর্ধিত প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ কর আরোপের প্রস্তাবের প্রভাব এবং সংকটাপন্ন ও অনিয়মে জর্জরিত ব্যাংক খাত সংস্কারে প্রতিশ্রুত উদ্যোগ না থাকায় এক বিবৃতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। 

এছাড়া রাষ্ট্রায়ত্ত লোকসানি খাতের ঘাটতি পূরণে জনগণের করের টাকায় ভর্তুকি অব্যাহত রাখা ও বিশেষ কৌশলে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ রাখার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে  (টিআইবি)। রোববার এক বিবৃতিতে সংস্থার নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান এসব কথা বলেছেন। তবে প্রস্তাবিত বাজেটে সুবিধাবঞ্চিত ব্যক্তিদের সংখ্যা ও মাসিক ভাতার হার বৃদ্ধি এবং নারী উন্নয়নে  সর্বোচ্চ বরাদ্দ রাখায় সন্তোষ প্রকাশ করেছে টিআইবি।

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, অনিয়ম, দুর্নীতি ও যোগসাজশের ফলে ধুঁকতে থাকা ব্যাংক খাত সংস্কারে বাজেট প্রস্তাবে কোনো উদ্যোগ না থাকা, আমানতকারীদের আস্থার সঙ্গে সরকারের প্রতিশ্রুতির অন্যায্য বরখেলাপ। ব্যাংকব্যবস্থায় খেলাপি ঋণ ও যোগসাজশের সঙ্গে দুর্নীতিবাজ, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের জবাবদিহির আওতায় আনার উদ্যোগ না নিয়ে বিদ্যমান করপোরেট কর হার কমানোর প্রস্তাব অসাংবিধানিক ও বৈষম্যমূলক।

এ ছাড়া বাজেট প্রস্তাবে বিশেষ কৌশলে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ অর্থাৎ জরিমানা দিয়ে অপ্রদর্শিত অর্থ বৈধ করার উদ্যোগ যেমন অসাংবিধানিক তেমনি অনৈতিক, বৈষম্যমূলক ও রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় দুর্নীতি সহায়ক উল্লেখ করে টিআইবি নির্বাহী পরিচালক বলেন, এ ধরনের সুযোগ দেওয়ার মাধ্যমে সততা চর্চাকে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে। 

এ ছাড়া বাজেট বাস্তবায়নের হার বৃদ্ধির লক্ষ্যে অর্থবছরের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সমভাবে অর্থ ছাড়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেছে টিআইবি। 

পিডিএসও/তাজ