জার্মানির ইতিহাস বদলানোর মিশন

প্রকাশ : ১৪ জুন ২০১৮, ০০:০০

কিং কদম

প্রাইমারির গন্ডি পেরিয়ে হাইস্কুলে ভর্তি হতেই বাংলা হয়ে গেল দুই ভাগ! দ্বিতীয় পত্রের সিলেবাসে অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক হয়ে উঠল ভাব সম্প্রসারণ। এই যেমনÑ ‘স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে রক্ষা করা কঠিন’।

তবে বিশ্বকাপ জ্বর শরীরে জেঁকে বসায় বদলে ফেলতে হচ্ছে ব্যাকরণ। এখন সবকিছু ভাবতে হচ্ছে ফুটবলীয় ভাষায়। তাই আর ভাব সম্প্রসারণ নয়; প্রশ্নপত্র তৈরি করতে হচ্ছে ‘অভিশপ্ত ইতিহাসের অপসারণ’ নিয়ে। আর পরীক্ষার হলে এ বিষয়ে লিখতে হবে জার্মানিকে!

প্রশ্ন : অভিশপ্ত ইতিহাসের অপসারণ করÑ ‘বিশ্বকাপ জয়ের চেয়ে শিরোপা ধরে রাখা কঠিন’। সময় : ১৪ জুন- ১৫ জুলাই, পূর্ণমান : ২১ (একুশতম বিশ্বকাপ বলে)

হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন। বিশ্বকাপ ধরে রাখতে হলে আগের ধারা বদলে নতুন ইতিহাস রচনা করতে হবে জার্মানদের।

ইতিহাস বলছে, ফিফা আয়োজিত আরেক বৈশ্বিক আসর ‘কনফেডারেশন্স কাপ’ জিতে বিশ্বকাপ খেলতে গিয়ে কোনো দল শিরোপা ধরে রাখতে পারেনি! সেটা ইতিহাস-পরিসংখ্যান ঘাটলেই স্পষ্ট হয়ে ধরা দেবে। ১৯৯২ সালে কনফেডারেশন্স কাপের উদ্বোধনী আসর বসে সৌদি আরবে। ফাইনালে স্বাগতিকদের ৩-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা ঘরে তোলে গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা-দিয়েগো সিমিওনের আর্জেন্টিনা। কোনো বৈশ্বিক আসরে এটাই ছিল আলবিসেলেস্তেদের সর্বশেষ শিরোপার স্বাদ। সে সময় অবশ্য এই টুর্নামেন্টের নাম ছিল ‘কিং ফাহাদ কাপ’।

আর্জেন্টিনার এই দলটাই ১৯৯৪ সালে যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডেই ঘরে ফেরার টিকিট কাটে। তাদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিল সেবারই দুই যুগ বিশ্বকাপ জিততে না পারার আক্ষেপ ঘুচিয়ে চতুর্থবার বিশ্ব ফুটবলের রাজ সিংহাসনে বসে।

১৯৯৭ সালে ‘কিং ফাহাদ কাপ’কে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দেয় ফিফা। আজকের ‘ফিফা কনফেডারেশন্স কাপ’-এর নামকরণ করা হয় তখনই। বস্তুত সেটাই ছিল প্রথম আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃত কনফেডারেশন্স কাপ।

ওই আসরটিরও আয়োজক ছিল সৌদি। ওইবারের শিরোপা নির্ধারণীতে অস্ট্রেলিয়াকে ৬-০ গোলে চূর্ণ করে রোমারিও-ডুঙ্গার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল।

পরের বছর ফ্রান্সে পেন্টা জয়ের মিশনে নেমে খুব কাছ থেকে ফিরতে হয়েছে সেলেকাওদের। সেন্ট ডেনিসের ফাইনালে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে বিশ্ব জয়ের আনন্দে মাতেন জিনেদিন জিদান-থিয়েরি অঁরি-ফাবিয়েন বার্থেজরা, যে দলের নেতৃত্বে ছিলেন বর্তমান ফ্রেঞ্চ কোচ দিদিয়ের দেশম।

ফরাসিদের জয়জয়কার জারি থাকে ২০০১ কনফেডারেশন্স কাপেও। প্রথম বিশ্বকাপ জয়ের ৩ বছর পর প্রথমবার মিনি বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ নেয় ‘লে ব্লুরা’।

সেই ফ্রান্স ২০০২ সালে এশিয়ার মাটিতে (কোরিয়া-জাপান যৌথ আয়োজক) অনুষ্ঠিত প্রথম বিশ্বকাপ খেলতে গিয়ে গ্রুপ পর্বেই ধরাশায়ী! ওইবারই পেন্টা জয়ের পাশাপাশি ভিন্ন চার মহাদেশে বিশ্ব বিজেতার মুকুট পড়ার অনন্য কীর্তি গড়ে রোনাল্ডো-রিভালডো-কাফু-কার্লোসদের পরাক্রমশালী ব্রাজিল।

পেন্টাজয়ী ব্রাজিল এতটাই ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে যে, তাদের দ্বিতীয় সারির দলের কাছেও সে সময় কেউ পেরে উঠত না। এই বেঞ্চ গরম করাদের একাংশকে জার্মানি পাঠিয়েই ২০০৫ কনফেডারেশন্স কাপ পুনরুদ্ধার করে ব্রাজিল। তবে পরের বছর পূর্ণ শক্তির দল নিয়ে বিশ্বকাপ খেলতে নেমেও কোয়ার্টার ফাইনালে হেক্সা জয়ের স্বপ্নের সলিল সমাধি ঘটে ব্রাজিলের।

তবে কনফেডারেশন্স কাপের পরের দুই আসরে (২০০৯ ও ২০১৩) শিরোপা ধরে রেখে হ্যাটট্রিক নৈপুণ্য দেখায় সাম্বা বয়েজরা। দ্বিতীয় বৃহত্তম বৈশ্বিক ফুটবল আসরটিকে এক প্রকার ‘নিজেদের সম্পত্তিতে’ পরিণত করে ব্রাজিল। কিন্তু ইতিহাসের মারপ্যাঁচে হেক্সা জয় এখনো অধরাই রয়ে গেছে।

সবশেষ গেল বছর কনফেডারেশন্স কাপ শিরোপা শোকেজে ভরিয়ে আর্জেন্টিনা, ফ্রান্স, ব্রাজিলের পর চতুর্থ জাতি হিসেবে সব ধরনের ভূম-লীয় ট্রফি জয়ের তালিকায় নাম লেখায় জার্মানি।

আর সেটা করেই যে সাংঘাতিক ভুল করে ফেলেছে ডি মানশাফ্টরা! ওই যে কথামালা দিয়ে লেখাটা শুরু করেছিলামÑ কনফেডারেশন্স কাপ জিতে বিশ্বকাপ খেলতে নামা কোনো দল অদ্যবধি শিরোপা ধরে রাখতে পারেনি।

সত্যিই, স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে রক্ষা করা কঠিন। বিশ্বকাপ জয়ের চেয়ে শিরোপা ধরে রাখাটা আরো বেশি কঠিন।

ইওয়াখিম লোভ্যের/জোয়কিম লোয়ের ছাত্ররা কি পারবে, ইতিহাস পাল্টে নতুন ইতিহাস লিখতে?

 

১৯৯২ কনফেডারেশন্স কাপ চ্যাম্পিয়ন ? আর্জেন্টিনা

১৯৯৪ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ? ব্রাজিল

 

১৯৯৭ কনফেডারেশন্স কাপ চ্যাম্পিয়ন ? ব্রাজিল

১৯৯৮ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ? ফ্রান্স

 

২০০১ কনফেডারেশন্স কাপ চ্যাম্পিয়ন ? ফ্রান্স

২০০২ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ? ব্রাজিল

 

২০০৫ কনফেডারেশন্স কাপ চ্যাম্পিয়ন ? ব্রাজিল

২০০৬ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ? ইতালি

 

২০০৯ কনফেডারেশন্স কাপ চ্যাম্পিয়ন ? ব্রাজিল

২০১০ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ? স্পেন

 

২০১৩ কনফেডারেশন্স কাপ চ্যাম্পিয়ন ? ব্রাজিল

২০১৪ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ? জার্মানি

 

২০১৭ কনফেডারেশন্স কাপ চ্যাম্পিয়ন ? জার্মানি

২০১৮ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ? থথথথথথ ?

"