‘৯৩ ভাগ মানুষ এখন বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায়’

প্রকাশ : ১৩ জুন ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের ৯৩ ভাগ মানুষ এখন বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু। তিনি বলেন, ‘বিদ্যুৎ খাত দেশের অন্যতম সেবা খাত। এত বড় সেবা খাত সঠিকভাবে পরিচালনা করতে দ্রুত ডিজিটাল সেবা দিতে হবে। শিগগিরই বিদ্যুৎ বিভাগের সব দফতর বা প্রতিষ্ঠান ইআরপির (এন্টারপ্রাইজ রিসোর্স প্ল্যানিং) আওতায় আসছে। ইআরপি সিস্টেম চালু হলে কেন্দ্রীয়ভাবেই সব মনিটরিং করা যাবে। গ্রাহকের সেবার মানও বাড়বে।’

গতকাল বুধবার বিদ্যুৎ ভবনে ইআরপি বাস্তবায়ন-সংক্রান্ত সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বিদ্যুৎ বিভাগের সিনিয়র সচিব ড. আহমদ কায়কাউসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে পিডিবির চেয়ারম্যান প্রকৌশলী খালেদ মাহমুদ, আরইবির চেয়ারম্যান মে. জে. মঈন উদ্দিন (অব.), পাওয়ার সেলের ডিজি মোহাম্মদ হোসাইনসহ দফতর প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ইআরপিতে প্রকল্প ব্যবস্থাপনা, সেবাগ্রহীতা ব্যবস্থাপনা, হিসাবরক্ষণ, মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা, বিক্রয়, সম্পদের হিসাবরক্ষণ, ক্রয় সব তথ্য সন্নিবেশিত থাকবে। এখন যেভাবেই যে তথ্য সংরক্ষণ করা হোক, ইআরপি সফটওয়্যার তা সরাসরি নিয়ে নেবে।

জানা গেছে, একটি অ্যাপস ডাউনলোড করার মাধ্যমে মোবাইল, ট্যাব এমনকি ডেস্কটপে কাজ করা যাবে। তাতে সময় বাঁচবে। রাস্তায় বসেই অনেক আপডেট দিয়ে কথা বলা সহজ হবে। এখন শুধু গ্রাহক অনলাইনে আবেদন করে। কিন্তু বাকি কাজ হয় হাতে হাতে। এই সফটওয়্যার ইনস্টল করার পর পরের প্রত্যেকটি ধাপের কাজ করতে হবে। অনলাইনে এতে গ্রাহক চাইলে তার কাজের অগ্রগতি জানতে পারবে।

অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী প্রজন্মের কাজের পরিবেশ স্বস্তিজনক করতে ইআরপি (এন্টারপ্রাইজ রিসোর্চ প্ল্যানিং) দ্রুত বাস্তবায়ন করা প্রয়োজন। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে ইআরপি প্রয়োগ করার কোনো বিকল্প নেই। সংস্থার সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে এ সফটওয়্যার কার্যকর অবদান রাখবে।’

তিনি বলেন, ‘প্রযুক্তি ব্যবহারে অনীহা দূর করতে হবে। দফতর প্রধান বা সচিব বা মন্ত্রী সংশ্লিষ্ট অফিসের সার্বিক অবস্থা ড্যাশবোর্ডের মাধ্যমে জানতে পারবেন।’ এতে উভয় পক্ষই উপকৃত হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

 

"