চলতি অর্থবছরের ৫ মাস

আয়কর আদায় ২২ হাজার কোটি টাকা

প্রকাশ : ০৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

চলতি অর্থবছরের প্রথম পাঁচ মাসে ২২ হাজার ২৬৪ কোটি টাকার আয়কর আদায় হয়েছে। প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১২ দশমিক ৩৮ শতাংশ। শুধু নভেম্বর মাসেই আয়কর থেকে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ৫ হাজার ২৪৮ কোটি টাকা। এ অর্থবছরে এখন পর্যন্ত রিটার্ন জমা দিয়েছেন ১৬ লাখ ৯১ হাজার ৬১০ জন করদাতা। বর্তমানে ই-টিআইএনধারীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৮ লাখ ১৫ হাজার ৫০৪ জনে। এছাড়া রিটার্ন জমা দিতে সময়ের আবেদন করেছেন আরো ৩ লাখ ১৫ হাজার ১০৫ জন। ফলে ডিসেম্বরের শেষ দিকে রিটার্ন জমা দেওয়ার এই সংখ্যা ২৩ লাখের কাছাকাছি পৌঁছাতে পারে।

গত সোমবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) নিজ দফতরে এনবিআর সদস্য (কর প্রশাসন ও মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা) জিয়া উদ্দিন মাহমুদ সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব তথ্য জানান।

জিয়া উদ্দিন মাহমুদ বলেন, ২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে আয়কর থেকে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ছিল ৪ হাজার ১৩৫ কোটি টাকা। ২০১৮ সালের একই মাসে রাজস্ব এসেছে ৫ হাজার ২৪৮ কোটি টাকা। বছর ব্যবধানে মাসটিতে আয়কর আদায়ের প্রবৃদ্ধি ২৭ শতাংশ। আর ২০১৭ সালের আয়কর দিবস পর্যন্ত কর আদায়ের পরিমাণ ১৯ হাজার ৮১০ কোটি টাকা। আর চলতি বছরের কর দিবস পর্যন্ত রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ২২ হাজার ২৬৪ কোটি টাকা। অর্থাৎ বছর ব্যবধানে আয়কর আদায়ে প্রবৃদ্ধি ১২ দশমিক ৩৮ শতাংশ।

তিনি বলেন, ২০১৭ সালের কর দিবস পর্যন্ত রিটার্ন দাখিলের সংখ্যা ছিল ১৪ লাখ ৭৮ হাজার ৪৩৪। ওই বছর সময়ের আবেদন করেছিলেন ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৭৫৬ জন করদাতা। সব মিলিয়ে রিটার্ন দাখিলের সংখ্যা ছিল ১৮ লাখ ৩৫ হাজার ১৯০টি। আর ২০১৮ সালের কর দিবস পর্যন্ত রিটার্ন দাখিল করেছেন ১৬ লাখ ৯১ হাজার ৬১০ জন। রিটার্ন দিতে সময়ের আবেদন করেছেন আরো ৩ লাখ ১৫ হাজার ১০৫ জন। ফলে বছরটিতে রিটার্ন দাখিলের সংখ্যা ২০ লাখ ৬ হাজার ৭১৫টি হতে পারে।

জিয়া উদ্দিন মাহমুদ বলেন, ২০১৮ সালের এখন পর্যন্ত প্রকৃত রিটার্ন দাখিলের সংখ্যা বেড়েছে ২ লাখ ১৩ হাজার ১৭৬টি। অর্থাৎ রিটার্ন দাখিলে প্রবৃদ্ধি ১৪ শতাংশ। চলতি বছরে রিটার্ন দাখিলের সংখ্যা ২৩ লাখে পৌঁছাতে পারে।

তিনি বলেন, কর দেওয়ার ক্ষেত্রে চেতনাগত স্তরে বিশাল পরিবর্তন আসায় সবার মধ্যে কর দেওয়ার প্রবণতা লক্ষ করা যাচ্ছে। তরুণরা কর দিচ্ছেন। মেলার মতো কর অফিসেও একই ধরনের সেবা দেওয়া হয়েছে। করদাতাদের পদচারণায় মুখর ছিল কর অফিসগুলোও। এ সময় এনবিআরের প্রথম সচিব খন্দকার খুরশীদ কামালসহ ঊধ্বর্তন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে গতকাল এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া আশা প্রকাশ করেছিলেন, রিটার্নধারীর সংখ্যা এবার বেড়ে ২২-২৪ লাখ হতে পারে। কোম্পানি ব্যতীত অন্য সব করদাতার জন্য ২০১৮-১৯ অর্থবছরের আয়কর রিটার্ন দাখিলের শেষ হয় ২ ডিসেম্বর। নির্ধারিত শেষ সময় ৩০ নভেম্বর হলেও করদাতাদের সুবিধার্থে রিটার্ন দাখিলের সময় দুই দিন বৃদ্ধি করা হয়। আয়কর রিটার্ন দাখিলের শেষ দিনে অনেকটা করবান্ধব পরিবেশে কর উৎসব চলে।

 

"