ছুটির দিনে আয়কর মেলায় করদাতাদের ঢল

প্রকাশ : ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনায় চলছে আয়কর মেলা। সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলার প্রথম সাপ্তাহিক ছুটির দিন শনিবারে করদাতাদের ঢল নেমেছিল। মেলার পঞ্চম দিন শনিবার সকাল থেকেই ছিল করদাতাদের সরব উপস্থিতি। এদিকে মেলার পঞ্চম দিন গতকাল মেলা থেকে আয়কর আহরিত হয়েছে ২৯০ কোটি ৫২ লাখ ৯৩ হাজার ৭০৮ টাকা। মেলা প্রাঙ্গণে প্রবেশ করলে প্রথমেই চোখে পড়বে অনুসন্ধান ও তথ্য কেন্দ্র। সেখান থেকে তথ্য নিয়ে যেতে হয় বিভিন্ন স্টলে। তারপর মিলবে কর-সংক্রান্ত সব ধরনের সেবা। সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা ছুটির দিনে অফিসের ব্যস্ততা না থাকায় কেউ কেউ শনিবারকে মেলায় আয়কর বিবরণী জমা দেওয়ার জন্য বেছে নিয়েছেন। নবমবারের মতো আয়োজিত রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে আয়কর মেলার গত শুক্রবারও ছিল প্রচন্ড ভিড়।

গতকার মেলায় আয়কর বিবরণী জমা দিয়েছেন একটি সরকারি ব্যাংকের কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন। মিরপুরের এ বাসিন্দা বলেন, প্রথমবার রিটার্ন দাখিল করার আনন্দ অন্য রকম। রিটার্ন জমা দিতে সময়ই লাগেনি। এনবিআর কর্মকর্তারা খুব দ্রুত সেবা দিচ্ছেন বলে জানান তিনি। রাজধানীর ধানমন্ডি থেকে আসা রবিউল ইসলাম বলেন, এখানে সব কিছু বেশ গোছানো। তবে জায়গাটি আরেকটু বড় হলে ভালো হতো। ছুটির দিন হওয়ায় সরকারি ও বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী ছাড়াও অন্য পেশাজীবীদেরও মেলায় আসতে দেখা গেছে। মেলা ঘুরে দেখা যায়, বিভিন্ন কর অঞ্চলের রিটার্ন গ্রহণ বুথ, হেল্প ডেস্ক, ব্যাংকের বুথ, ই-পেমেন্ট বুথ, ই-টিআইএন বুথসহ সব বুথেই করদাতাদের ভিড়। ব্যাংক বুথ ছাড়াও ই-পেমেন্টের মাধ্যমে অনলাইনেই জমা দেওয়া যাচ্ছে আয়কর। করা যাচ্ছে ই-ফাইলিংও। কর নিবন্ধন (ই-টিআইএন) নিতেও সময় লাগছে খুবই কম। বিড়ম্বনা ছাড়া সহজে আয়কর জমা দিতে পেরে সন্তুষ্ট করদাতারাও। এদিকে গতকাল অডিও ভিজুয়াল পদ্ধতিতে কর শিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এর ফলে এখন থেকে করদাতারা আধুনিক পদ্ধতিতে কর শিক্ষণে অংশ নিতে পারবেন। গতকাল শনিবার ৪টি ডকু ড্রামায় রিটার্ন দাখিলের তথ্য সংযোজন করা হয়। নাটিকার মতো এ ভিডিওগুলো দেখলে করদাতারা নিজেই তার রিটার্ন তৈরি করতে পারবেন। ভবিষ্যতে এসব ভিডিও এনবিআরের নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলেও আপলোড করা হবে বলেও জানায় এনবিআর।

অডিও ভিজুয়াল পদ্ধতিতে কর শিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মেলার সমন্বয়ক ও এনবিআর (আয়কর) সদস্য জিয়া উদ্দিন মাহমুদ, কর একাডেমির মহাপরিচালক মো. বজলুর কবির ভূঁইয়া ও কর অঞ্চল-১৩-এর অতিরিক্ত কর কমিশনার সুবর্ণা চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। অডিও ভিজুয়াল পদ্ধতির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মেলার সমন্বয়ক ও এনবিআর সদস্য জিয়া উদ্দিন মাহমুদ বলেন, ডিজিটাল কার্যক্রমের মাধ্যমে এনবিআর এগিয়ে চলছে। তারই অংশ হিসেবে অডিও ভিজুয়াল পদ্ধতিতে কর শিক্ষণ কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে অনলাইনেই কর-সংক্রান্ত সব ধরনের সেবা পাওয়া যাবে। এতে হয়রানি কমার সঙ্গে সঙ্গে বাড়বে করদাতাদের সচেতনতাও।

এনবিআরের অতিরিক্ত কর কমিশনার সুবর্ণা চৌধুরী বলেন, কার্যক্রমের অংশ হিসেবে প্রথমে চারটি ক্লিপ তৈরি করা হয়েছে। ক্লিপগুলো নাটিকার মতো হলেও এর ৮০ শতাংশ সময় গ্রাফিকস তথ্যনির্ভর। ফলে করদাতারা এসব ভিডিও ক্লিপস দেখলে সহজেই নতুন রিটার্ন ফরম পূরণ করতে পারবেন।

সুবর্ণা বলেন, শিগগিরই এসব ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করা হবে। তবে এখন পর্যন্ত এনবিআরের অফিশিয়াল কোনো ইউটিউব চ্যানেল না থাকায় ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ভবিষ্যতে ই-টিআইএন নিবন্ধন, অনলাইনে কর দেওয়া (ই-পেমেন্ট) ও অনলাইনে রিটার্ন ফরম পূরণ (ই-ফাইলিং) অডিও ভিজুয়াল পদ্ধতিতে কর-সংক্রান্ত সব ধরনের সেবা দেওয়া হবে। প্রতিদিনের মতো গতকালও অনুষ্ঠিত হয়েছে কর শিক্ষণ ফোরাম। এতে নটর ডেম কলেজের ৪০ শিক্ষার্থী অংশ নেন। পরে প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ১০ জনের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

 

"