‘এফডিআই বাড়াতে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে’

প্রকাশ : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ব্যবসায়ীদেরকে বিদেশী বিনিয়োগ (এফডিআই) বাড়ানোর জন্য আরো আন্তরিকভাবে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, উচ্চ মধ্যম আয় বা উন্নত দেশের কাতারে পৌঁছাতে আমাদের বিনিয়োগ বাড়ানো জরুরী। এজন্য সরকার অবকাঠামো ও জ্বালানী সুবিধাসহ বিনিয়োগ উপযোগী সব ধরনের নীতি সহায়তা দিচ্ছে। এখন বেসরকারিখাত বিশেষ করে ব্যবসায়ীদের দেশীয় বিনিয়োগের পাশাপাশি এফডিআই বাড়াতে আরো আন্তরিক হতে হবে বলে জানান তিনি।

গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি পাঁচতারকা হোটেলে ‘ইমার্জিং বাংলাদেশ : ব্যবসায় বন্ধুত্বপূর্ণ নীতি ও পরিকল্পনা’ শীর্ষক ব্যবসায়ী নেটওয়ার্কিং বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ-জার্মান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (বিজিসিসিআই) বৈঠকের আয়োজন করে। বিজিসিসিআই সভাপতি ব্যারিস্টার ওমর সাদাতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী এম আমিনুল ইসলাম, সিইএমএস গ্লোবালের সভাপতি মেহেরুন নেসা ইসলাম, বিজিসিসিআই নির্বাহী পরিচালক এম এ মতিরূপ্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

অর্থনৈতিক উন্নয়নে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগের বর্ণনা দিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, বেসরকারিখাত যেন ব্যবসা ও বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ পায়, এজন্য অবকাঠামো সুবিধা নিশ্চিত করার পাশাপাশি যেখাতে যে ধরনের নীতি সহায়তা দেওয়া দরকার সেটাই দেওয়া হচ্ছে। কেবলমাত্র তৈরি পোশাকের ওপর নির্ভর না করে-রফতানি বহুমূখীকরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এজন্য সরকার কয়েকটি পণ্যে প্রণোদনা ও নীতি সহায়তা দিচ্ছে। চামড়া, ওষুধসহ বেশ কয়েকটি খাতে রফতানি সম্প্রসারণের অবারিত সুযোগ রয়েছে উল্লেখ করে তিনি ব্যবসায়ীদের এসব খাতে বিনিয়োগ করার আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বলেন, দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি নির্ভর করে বেসরকারিখাতের উন্নয়নের ওপর। এজন্য বর্তমান সরকার বেসরকারিখাতের উন্নয়নে অত্যন্ত আন্তরিক। ডুয়িং বিজনেস আরো সহজ করতে বিভিন্ন সংস্কার কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। পাশাপাশি বেসরকারি খাতকে এগিয়ে নিতে সময়োপযোগী নীতি-সহায়তা নিশ্চিত করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

বিজিসিসিআই সভাপতি ওমর সাদাত বাংলাদেশে এফডিআই আহরণের ক্ষেত্রে অবকাঠামোগত ও দক্ষ জনবলের অভাব,জমি অধিগ্রহণের জটিলতা এবং আমলাতান্ত্রিক দীর্ঘসূত্রিতাকে বড় বাধা বলে মন্তব্য করেন। এসব বাধা দূর করতে না পারলে এফডিআই প্রবাহ যেমন বাড়বে না, তেমনি দেশে শক্তিশালী বেসরকারিখাত গড়ে উঠবে না। তিনি জার্মান বিনিয়োগ বাড়াতে জার্মানির জন্য একটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার আহবান জানান।

"