কলমানির চাহিদা বাড়লেও সুদহার সর্বনিম্নে

প্রকাশ : ১৯ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

কোরবানির ঈদ সামনে রেখে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বেতন-ভাতা পরিশোধ ও কোরবানির পশু কেনাসহ নানা কারণে ব্যাংকে নগদ টাকার চাপ বেড়েছে। এই বাড়তি চাপ সামলাতে ব্যাংকগুলোকে যেতে হচ্ছে আন্তব্যাংক মুদ্রাবাজারে (কলমানি মার্কেট)। তবে কলমানির চাহিদা বাড়লেও সুদহার স্মরণকালের সর্বনিম্নে পৌঁছেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের গত মঙ্গলবারের তথ্যে দেখা গেছে, কলমানিতে সর্বোচ্চ সাড়ে ৪ শতাংশ সুদে লেনদেন হয়েছে। তবে সুদের হার না বাড়লেও লেনদেন বেড়েছে কলমানি মার্কেটে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, ৬ আগস্ট থেকে ১৪ আগস্ট পর্যন্ত কলমানি মার্কেটে প্রতিদিনই লেনদেন বেড়েছে। এ সময়ে কলমানি মার্কেটে ব্যাংক ও ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে স্বল্পমেয়াদি ঋণ হিসাবে মোট লেনদেন হয়েছে ৫৭ হাজার ১০৪ কোটি টাকা। তার মধ্যে ব্যাংক-টু-ব্যাংকের সর্বোচ্চ সুদহার ছিল সাড়ে ৪ শতাংশ এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সর্বোচ্চ সুদহার ছিল ৫ শতাংশ। আলোচ্য সময়ে ব্যাংক-টু-ব্যাংকের গড় কলমানির গড় সুদহার ছিল ১ দশমিক ৬১ শতাংশ। আর আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর গড় সুদহার ৪ দশমিক ৫৫ শতাংশ। গত এক দশকে এত কম সুদহারে লেনদেন হয়নি কলমানি মার্কেটে। সর্বশেষ ২০০৯ সালের অক্টোবরে গড়ে ২ দশমিক ৮০ শতাংশ সুদে লেনদেন হয়। ২০০৩ সালের পর থেকে কখনোই কলমানির সুদহার এত কম দেখা যায়নি। এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর বিধিবদ্ধ নগদ জমা সংরক্ষণের (সিআরআর) হার কমানোর ফলে বাজারে নগদ টাকার সরবরাহ বাড়ায় কলমানি সুদহার বাড়েনি বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, গত ৬ আগস্ট কলমানিতে লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৬ হাজার ৯৫০ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। তার আগের দিন ছিল ৭ হাজার ৯০২ কোটি টাকা। তবে গত ১৪ আগস্ট এটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ৩০৭ কোটি টাকা। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, বিভিন্ন কারণে ঈদের সময় লেনদেন বেড়ে গেলেও বর্তমানে ব্যাংকগুলোতে নগদ টাকার সংকট নেই। ফলে লেনদেন বাড়লেও কলমানি মার্কেটে সুদহার স্থিতাবস্থায় রয়েছে বলে জানান তিনি।

জানা যায়, গত ২০১০ সালে কোরবানির ঈদের আগে কলমানি মার্কেটের সুদের হার প্রায় ২০০ শতাংশের কাছাকাছি উঠেছিল। এরপর অবশ্য আর কখনো কলমানির সুদের হার খুব একটা বাড়তে দেখা যায়নি। সর্বশেষ ২০১২ সালে ঈদের আগে ১৫ শতাংশ এবং ২০১৪ সালে ৯ শতাংশ পর্যন্ত উঠেছিল কলমানি মার্কেটের সুদহার। এরপর থেকে কলমানির সুদহার ধারাবাহিকভাবে কমতে কমতে একেবারে তলানিতে এসে ঠেকেছে।

 

"