চীনের কাছে লেটার অব এক্সচেঞ্জ প্রেরণ প্রসঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী

৯৭ শতাংশ শুল্কমুক্ত বাণিজ্য সুবিধা পাবে বাংলাদেশ

প্রকাশ : ১৩ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) সিদ্ধান্ত মোতাবেক বাংলাদেশ চীনের কাছে লেটার অব এক্সচেঞ্জ প্রেরণ করেছে। সম্মতি পাওয়া গেলেই বাংলাদেশ চীনের কাছে রফতানি পণ্যের ৯৭ শতাংশ শুল্কমুক্ত বাণিজ্য সুবিধা পাবে। গতকাল বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ঢাকায় নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত ঝ্যাং জুয়োর সঙ্গে মতবিনিময় শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ডব্লিউটিওর সদস্য দেশগুলো নিজেদের মধ্যে এ বাণিজ্য সুবিধা নিতে পারে। এ মুহূর্তে বাংলাদেশ এশিয়া প্যাসিফিক ট্রেড এগ্রিমেন্টের (আপটা) আওতায় চীনের কাছ থেকে ৫০৭৪টি রফতানি পণ্যের ওপর শুল্কমুক্ত বাণিজ্য সুবিধা পাচ্ছে। লেটার অব এক্সচেঞ্জের আওতায় বাণিজ্য সুবিধা গ্রহণ করলে আপটার আওতায় চলমান বাণিজ্য সুবিধা আর থাকবে না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে এফটিএ করার জন্য চীন আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এ বিষয়ে এরই মধ্যে উভয় দেশের মধ্যে এমওইউ স্বাক্ষরিত হয়েছে। এখন এফটিএর সম্ভাব্যতা যাচাই প্রক্রিয়া চলছে। সব আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হলে বাংলাদেশ চীনের সঙ্গে এফটিএ স্বাক্ষর করবে। বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে চূড়ান্তভাবে উন্নীত হবে ২০২৭ সালে। তখন জিএসপি সুবিধা থাকবে না। এফটিএ করে পারস্পরিক বাণিজ্য সুবিধা নিতে হবে। চীনের আর্থিক ও কারিগরি সহায়তায় বাংলাদেশে বড় বড় প্রকল্প বাস্তিবায়িত হচ্ছে। চীনের সাংহাইয়ে আগামী ৫-১০ নভেম্বর প্রথমবারের মতো ইন্টারন্যাশনাল এক্সপোর্টার্স এক্সপো-২০১৮ অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে, বাংলাদেশ এতে অংশগ্রহণ করবে।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আগামী সাধারণ নির্বাচন দেশের সংবিধান মোতাবেক অনুষ্ঠিত হবে। আমি বিশ্বাস করি, বিএনপিসহ দেশের সব দলের অংশগ্রহণে এ নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ হবে। নির্বাচনের সময় বর্তমান সরকার শুধু রুটিনওয়ার্ক করবে, নির্বাহী ক্ষমতা প্রয়োগ করবে না। আমার ধারণা, বিগত সাধারণ নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে বিএনপি যে ভুল করেছে, সে ভুল এবার আর করবে না। সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে বিএনপি জয়লাভ করেছে। সাধারণ নির্বাচনে বিএনপির না আসার কোনো কারণ দেখছি না। এখন আর কোনো সংলাপের প্রয়োজন নেই। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শুভাশীষ বসু এবং এফটিএর শাখার অতিরিক্ত সচিব মো. শফিকুল ইসলাম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

"