আসছে বাজেটে ব্যবসায়ীদের উপযোগী রাজস্ব নীতি প্রণয়ন

প্রকাশ : ১১ মার্চ ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া এনডিসি বলেছেন, আসছে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে টেক্সটাইল ব্যবসায়ীদের উপযোগী রাজস্ব নীতি প্রণয়ন করা হবে। একই সঙ্গে অবৈধ আমদানি ও বাজার ধ্বংসকারী পন্থা বন্ধ করা হবে বলে জানান তিনি।

গতকাল নরসিংদীর মাধবদী এসটি ইনস্টিটিউশনে ব্যবসায়ীসহ করদাতা ও স্থানীয় ব্যক্তিদের সঙ্গে রাজস্ব সংলাপে তিনি এসব কথা বলেন। কর অঞ্চল-১০-এর উদ্যোগে এই রাজস্ব সংলাপ আয়োজন করা হয়। এনবিআরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সৈয়দ এ মু’মেন এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছেন। ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন অভিযোগ ও দাবির পরিপ্রেক্ষিতে এনবিআর চেয়ারম্যান আরো বলেন, এখন থেকে ব্যবসায়ীদের প্রতি হয়রানিমূলক কোনো কাজ এনবিআর করবে না। বন্ড সুবিধার অপব্যবহার করে যারা প্রয়োজনের অতিরিক্ত মালামাল আমদানি করে অবৈধভাবে খোলাবাজারে বিক্রয় করেন, তাদের ওপর নজরদারি বাড়ানো হবে এবং এসব অপরাধ কঠোর হাতে দমন করা হবে। তিনি বলেন, একটি দেশের উন্নয়নের মূল চাবিকাঠি হলো অর্থ বা রাজস্ব আয়। পর্যাপ্ত অর্থের যোগানের মাধ্যমে রাষ্ট্রের রাজস্ব ভান্ডার যত সমৃদ্ধ হবে, এর ভিত তত শক্তিশালী হবে। এজন্য দেশের সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে আগ্রহ ও আনন্দের সঙ্গে রাজস্ব দিতে হবে। তাই যাদের কর দেওয়ার সামর্থ্য রয়েছে, তারা অবশ্যই কর দেবেন এবং দেশের মানুষকে রাজস্ব দিতে উদ্বুদ্ধ করবেন। দেশের উন্নয়নের জন্য সবাইকে স্বতঃস্ফূর্তভাবে রাজস্ব দিতে হবে।

মোশাররফ হোসেন বলেন, এনবিআর ও ব্যবসায়ীরা একে অপরের পরিপূরক ও সহায়ক শক্তি। দেশের সার্বিক উন্নয়নে আমরা একত্রে কাজ করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। এনবিআর অফিস হবে ব্যবসাবান্ধব, রাজস্ববান্ধব ও করদাতাবান্ধব। বর্তমানে এনবিআরের ব্যবসাবান্ধব যেসব ব্যবস্থা চালু রয়েছে তা অব্যাহত থাকবে। পাওনা রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক আলোচনায় জোর দিয়ে তিনি বলেন, পাওনা রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা ও সংলাপ করতে হবে। তাদের সঙ্গে ন্যায়সঙ্গত কথা বলতে হবে। প্রতিটি ক্ষেত্রে অত্যন্ত সততার সঙ্গে কাজ করতে হবে। সততার পুরস্কার সব জায়গায় পাওয়া যাবে।

"