বৃহস্পতির ৬৯ চাঁদ

প্রকাশ : ১৮ জুন ২০১৭, ০০:০০

বিজ্ঞান ডেস্ক

আধুনিক সময়ে টেলিস্কোপগুলো অনেক বেশি শক্তিশালী, তাই জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা সৌরজগতের বৃহত্তম গ্রহ বৃহস্পতির কক্ষপথে অতি ক্ষুদ্র নতুন দুটি চাঁদ আবিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছেন। নতুন উপগ্রহ দুটি মাত্র এক মাইল চওড়া। ক্ষুদ্র আকৃতির এ ধরনের চাঁদকে ‘মুনলেট’ বলা হয়ে থাকে। নতুন এই আবিষ্কারের ফলে বৃহস্পতির চাঁদের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৯।

চিলিতে লাস ক্যাম্পাস অবজারভেটরিতে ম্যাগেলান-বেইড রিফিলর ব্যবহার করে ওয়াশিংটন ডিসিতে কার্নেগি ইনস্টিটিউশন ফর সায়েন্সের গবেষকরা এই দুটি নতুন চাঁদ আবিষ্কার করেছেন। নামকরণ করা হয়েছে এস/২০১৬ জে১ এবং এস/২০১৭ জে১। এই আবিষ্কার বিজ্ঞানীদের বেশ অবাক করেছে, কারণ তারা যখন সৌরজগতের বাইরের বস্তুর সন্ধান করছিলেন তখন সৌরজগতের বৃহস্পতিতে মুনলেট দুটি দেখতে পান।

এ প্রসঙ্গে স্কাই অ্যান্ড টেলিস্কোপকে দেওয়া এক বক্তব্যে গবেষক দলটির প্রধান ড. স্কট শ্যাপার্ড বলেন, ‘আমরা সৌরজগতের বাইরের খুব দূরবর্তী বস্তু খোঁজায় আমাদের নিয়মিত গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছিলাম, যার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত ছিল সৌরজগতের কাল্পনিক নবম গ্রহ হিসেবে প্লানেট এক্স ও। এর মধ্যে দেখা মিলেছে বৃহস্পতির নতুন চাঁদ দুটি, যা এর আগে একই এলাকা থেকে নিখোঁজ হয়েছিল।

উভয় নতুন চাঁদ বৃহস্পতির কক্ষপথে তার অক্ষের বিপরীত দিক থেকে ঘূর্ণায়মান। উচ্চ বাঁকে বৃহস্পতির সমতলে ঘূর্ণায়মানের বৈশিষ্ট্যের কারণে গবেষকদের মতে, নতুন এই ক্ষুদ্র চাঁদ দুটি সম্ভবত বৃহস্পতি গ্রহ দ্বারা অধিষ্ঠিত হয়, যখন তারা গ্রহটির মহাকর্ষীয় আকর্ষণে খুব কাছাকাছি চলে আসে।

উভয় চাঁদের কক্ষপথ খুবই প্রসারিত এবং বৃহস্পতি থেকে অনেক দূর দিয়ে তাদের অবস্থান। এস/২০১৬ জে১ বৃহস্পতি থেকে ১২,৮০০,২৪৬ মাইল গড় দূরত্বে এবং এস/২০১৭ জে১ বৃহস্পতি থেকে ১৪,৬০২,২২৩ মাইল গড় দূরত্বে অবস্থিত। এই আবিষ্কার বিজ্ঞানীদের বৃহস্পতি গ্রহে কিছু হারিয়ে ফেলা চাঁদ খুঁজে দিয়েছে এবং এ রকম আরো চাঁদ পাওয়া যেতে পারে বলে গবেষকদের বিশ্বাস।

ড. শেপার্ড বলেন, ‘এ পর্যন্ত পাঁচটি হারিয়ে যাওয়া চাঁদ উদ্ধারের রেকর্ড আমাদের রয়েছে। আমাদের নতুন পর্যবেক্ষণে সম্ভবত হারিয়ে ফেলা সব চাঁদ খুঁজে পাওয়া যাবে।’

"