অর্থমন্ত্রীর বিরুদ্ধেও আন্দোলনের হুমকি সাংবাদিকদের

প্রকাশ : ০৯ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

সাংবাদিকদের নতুন বেতন কাঠামোর ‘প্রয়োজন নেই’ বলায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের পদত্যাগের দাবিতেও আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সভাপতি শাবান মাহমুদ। গতকাল মঙ্গলবার গোপালগঞ্জে এক সভায় তিনি এই হুমকি দেওয়ার পর সেখানে উপস্থিত প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী তাকে নতুন বেতন কাঠামোর বিষয়ে আশ্বস্ত করেন।

এর আগে গতকাল দুপুরে ঢাকায় এক বৈঠকের পর অর্থমন্ত্রী মুহিত সাংবাদিকদের বলেন, বর্তমানে সাংবাদিকদের বেতন সরকারি চাকুরেদের চেয়ে বেশি হওয়ায় তাদের জন্য ওয়েজ বোর্ড পুরোপুরি অপ্রয়োজনীয়।

নবম ওয়েজ বোর্ডের দাবিতে সংবাদকর্মীদের আন্দোলনের মধ্যে সংবাদপত্রের মালিকদের সংগঠন নোয়াবের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকের পর অর্থমন্ত্রীর এই বক্তব্য আসে।

গতকাল সন্ধ্যায় গোপালগঞ্জ প্রেসক্লাবে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টার সঙ্গে স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের মতবিনিময় সভায় অর্থমন্ত্রীর বক্তব্যে প্রতিক্রিয়া জানান শাবান মাহমুদ।

তিনি অর্থমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেন, ‘আপনি সাংবাদিকদের জন্য নবম ওয়েজ বোর্ড প্রয়োজন নেই বলেছেন। আপনি এই ঘোষণা দিয়ে সাংবাদিকদের প্রতিপক্ষ করতে চাইছেন। কার স্বার্থে, কার সুবিধার জন্য আপনি এটি বলেছেন, আমি জানি না।’

নবম ওয়েজ বোর্ডের দাবিতে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর বিরুদ্ধে আন্দোলনরত শাবান বলেন, ‘অর্থমন্ত্রীর বিরুদ্ধেও আমরা আন্দোলন শুরু করব। প্রয়োজনে সচিবালয় ঘেরাও করে তার পদত্যাগ দাবি করব।’

শাবানের বক্তব্যের পর প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ও বিএফইউজের সাবেক সভাপতি ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাংবাদিকবান্ধব প্রধানমন্ত্রী। তিনি মুক্ত গণমাধ্যম নিশ্চিত করেছেন। সাংবাদিকদের স্বাধীনতা নিরঙ্কুশ করেছেন। সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করেছেন। আমরা অচিরেই প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সাংবাদিকদের জন্য নবম ওয়েজ বোর্ড গঠন করব। কে কী বলল, তাতে কিছুই আসে-যায় না।’

গোপালগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদ আহম্মেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই মতবিনিময় সভায় বক্তৃতা করেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, জাতীয় প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, কোষাধ্যক্ষ কার্ত্তিক চ্যাটার্জি, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক কুদ্দুস আফ্রাদ, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অমিয় ঘটক পুলক, গোপালগঞ্জ প্রেসক্লাবের মহাসচিব সৈয়দ মিরাজুল ইসলাম, স্থানীয় সাংবাদিক আলীমুজ্জামান বিটু, সৈয়দ অছিকুজ্জামান, শেখ মোস্তফা জামান, সেলিম রেজা, ছিরু মিয়া এবং রেজোয়ান হোসেন।

সাংবাদিকদের সর্বশেষ বেতন কাঠামো হয়েছিল ২০১২ সালে। এরপর সরকারি চাকুরেদের বেতন বাড়ার পর সংবাদকর্মীদের আন্দোলনের মুখে নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের উদ্যোগ নিয়েছে তথ্য মন্ত্রণালয়। কিন্তু সংবাদপত্রের মালিকদের সংগঠন নোয়াব তাদের প্রতিনিধির নাম না দেওয়ায় বোর্ড গঠন করা যাচ্ছে না বলে তথ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হচ্ছে। ওয়েজ বোর্ড গঠনে দেরির জন্য তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুকে দায়ী করে তার পদত্যাগের দাবিতে নানা রকম কর্মসূচি পালন করছে সাংবাদিকদের সংগঠনগুলো।

"