গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা, সাবেক স্বামী আটক

প্রকাশ : ১৬ জুলাই ২০১৭, ০০:০০

টঙ্গী প্রতিনিধি

গাজীপুরের টঙ্গীতে পারিবারিক কলহের জেরে খুকুমনি (২৪) নামের এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৭টায় বড়দেওড়া পরান মন্ডলের টেক এলাকার রাস্তায় গলির ভিতরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত খুকুমনি নরসিংদী সদর থানার ব্রাহ্মনদী গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের মেয়ে। এলাকাবাসী ঘাতক স্বামী হানিফ ওরফে কালাচানকে (৩০) আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে। এই হানিফ ওরফে কালাচান নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া থানার হাসুয়ারী এলাকার মজনু মিয়ার ছেলে।

টঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফিরোজ তালুকদার জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে এ হত্যাকান্ড হয়েছে। হত্যাকারীকে আটক করা হয়েছে।

নিহত খুকুমনির বাবা রিকশাচালক মো. দেলোয়ার বলেন, কয়েক বছর আগে হানিফের সঙ্গে আমার মেয়ের বিয়ে হয়। তার মারিয়া (৩) নামের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকে জামাই মেয়ের ওপর নানা ধরনের অত্যাচার শুরু করে। একপর্যায়ে সে নেশায় আসক্ত হয়ে চুরি-ডাকাতিতে জড়িয়ে পড়ে। পরে আমরা উপায়ান্তর না পেয়ে মেয়েকে ছাড়িয়ে নিয়ে জয়পুরহাট জেলার খেতলাল থানার মহব্বতপুর এলাকার সাহাদুল ইসলামের ছেলে রানার সঙ্গে বিয়ে দেই। এরপর হানিফ ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে এবং মেয়েকে ভয়ভীতি ও মেরে ফেলার হুমকি দিতে থাকে। এরই জের ধরে শনিবার সকালে খুকুমনি ন্যাশনাল পলিমার নামে তার কর্মস্থলে যাওয়ার উদ্দেশে বাসা থেকে বের হয়ে পরান মন্ডলের টেক রাস্তায় পৌঁছলে হানিফ তাকে বটি দিয়ে গলা, পেট ও হাতে কোপায়। এতে খুকুমনি ঘটনাস্থলেই মারা যায়। পরে আশপাশের লোকজন ঘাতক হানিফকে আটক করে গণধোলাই দেয়। খবর পেয়ে টঙ্গী থানার এসআই চন্দন দে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে লাশ উদ্ধার ও খুনি হানিফকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

"