‘ঘরত হাঁটুপানি খাবার পাচ্ছি না’

প্রকাশ : ১৪ জুলাই ২০২০, ০০:০০

রংপুর ব্যুরো

রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার ৭নং মর্নেয়া ইউনিয়নে প্রায় ৪ হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন এলাকাবাসী। ওই ইউনিয়নে ১, ২ এবং ৭, ৮, ৯নং ওয়ার্ডের জনগণ বন্যায় বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এদিকে জানা যায়, ওই এলাকার জনগণের জন্য সরকারিভাবে শুধু ২০০ বস্তা ত্রাণ দেওয়া হয়েছে। প্রতি বস্তায় চাল, ডাল রয়েছে। যা অপ্রতুল। টানা বৃষ্টি আর উজানের ঢাল, তিস্তার পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করায় এসব এলাকা পানিবন্দি হয়েছে।

সরে জমিনে দেখা যায়, এসব এলাকার আবাদি জমি ডুবে গেছে, পুকুরের মাছ ভেসে গেছে, বসতবাড়ি ডুবে গেছে। যার ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মোহাব্বত আলী চেংটু (৪০)। তিনি বলেন, ‘বাড়ি ঢুবি গেইছে। এক হাঁটুপানি ঘরত। খাবার পাচ্ছি না। থাকার মতো জায়গা নাই। এখন কি করমো ভাবি পাবানছি না। যদি সরকার হামাক গুল্যাক কিছু খাবার দেয়, তাহলে হামার জন্য ভালো হয়।’ এ বিষয়ে ৭নং মর্নেয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোসাদ্দেক আলী আজাদ বলেন, সরকারিভাবে ২০০ বস্তা ত্রাণ এসেছে। পানিবন্দি প্রায় ৪ হাজার মানুষ। যা মানুষের তুলনায় ত্রাণ অপ্রতুল। তিনি আরো বলেন, পানির স্রোতে রাস্তাঘাট ভেঙে যাচ্ছে। তাই নিজ উদ্যোগে বস্তায় মাটি দিয়ে বাঁধ দেওয়ার চেষ্টা করেছি। তাই সরকারিভাবে উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন।

এখন সরকারিভাবে উদ্যোগ না নিলে এসব এলাকার মানুষ আরো দুর্ভোগে পড়বে।

 

"