করোনায় বিশ্বে ১৮৬ সাংবাদিকের মৃত্যু

প্রকাশ : ০৩ জুলাই ২০২০, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে গেল ৪ মাসে ৩৫ দেশের ১৮৬ সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে। গত বুধবার জেনেভাভিত্তিক প্রেস অ্যামব্লেম ক্যাম্পেইন (পিইসি) এমন তথ্য প্রকাশ করেছে। খবর আনাদোলু এজেন্সির। ১ মার্চ থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত সময় ধরে সাংবাদিকদের মৃত্যুর বিষয়টি হিসাব করেছে পিইসি। এক্ষেত্রে বিভিন্ন দেশের সাংবাদিকদের সংগঠন, জাতীয় সংবাদপত্র, স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ও ওইসব দেশের আন্তর্জাতিক প্রতিনিধিদের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করেছে পিইসি। সংস্থাটির মতে মারা যাওয়া সাংবাদিকদের প্রকৃত সংখ্যা আরো বেশি। করোনায় মারা যাওয়ার সাংবাদিকদের মধ্যে ৯৩ জনই লাতিন আমেরিকা মহাদেশের। এশিয়ায় মারা গেছে ৩৪ জন। উত্তর আমেরিকায় মৃত্যু হয়েছে ১৪ সাংবাদিকের। জুন মাসে সর্বোচ্চ ৫৯ জন সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে। অর্থাৎ দৈনিক প্রায় দুজন মারা গেছেন। করোনায় সবচেয়ে বেশি সাংবাদিক মারা যাওয়া দেশের তালিকায় রয়েছে পেরু। দেশটিতে জুন পর্যন্ত ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। ব্রাজিলে মারা গেছে ১৬ জন। আর মেক্সিকোতে ১৪ জন। এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে ১৩ ও ইকুয়েডরে ১২ সাংবাদিকের প্রাণহানি ঘটেছে। ষষ্ঠ সর্বোচ্চ ১০ সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে পাকিস্তানে। ভারত ও বাংলাদেশে ৯ জন করে সাংবাদিক মারা গেছেন। নাইজেরিয়ায় মারা গেছেন আটজন, যুক্তরাজ্যে সাতজন, রাশিয়া ও বলিভিয়ায় পাঁচজন করে। নিকারাগুয়া ও ফ্রান্সে চারজন করে সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে। তিনজন করে সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে ক্যামেরুন, ডমিনিক রিপাবলিক, ইতালি ও স্পেনে। দুইজন করে সাংবাদিক মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে আলজিরিয়া, কলম্বিয়া, মিসর ও সুইডেনে। এ ছাড়া একজন করে সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে আফগানিস্তান, অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, কানাডা, কঙ্গো, ইরান, জাপান, কাজাখস্তান, মরোক্কো, পানামা, দক্ষিণ আফ্রিকা, টঙ্গো ও জিম্বাবুয়েতে। এ পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী দুই তৃতীয়াংশ সাংবাদিক দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। পিইসির মহাসচিব ব্লাইস লেমপেন বলেন, ‘আসলে প্রকৃত সংখ্যাটা আরো বেশি। এমন অনেক সাংবাদিক আছেন এই সময়ের মধ্যে মারা গেছেন। কিন্তু তাদের করোনা পরীক্ষা করা হয়নি। আবার এমন অনেকে মারা গেছেন তাদের মৃত্যুর খবর প্রকাশ করা হয়নি। কিছু কিছু দেশ সাংবাদিকদের মারা যাওয়ার হিসাব রাখছে। কিন্তু কিছু কিছু দেশ রাখতে পারছে না।’ এদিকে দেশে করোনা আক্রান্ত হয়ে ১০ সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে। উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে আটজনের। এখন পর্যন্ত আক্রান্ত সংবাদকর্মীর সংখ্যা ৫১৯। আর সুস্থ হয়েছেন ১৬৯ জন।

 

"