‘প্লাজমা ব্যাংক’ করতে চায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

প্রকাশ : ৩০ মে ২০২০, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনাভাইরাসের নমুনা শনাক্তের কিট উদ্ভাবনের পর এবার এই ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসায় প্লাজমা থেরাপির কার্যকারিতার পরিপ্রেক্ষিতে ‘প্লাজমা ব্যাংক’ করার উদ্যোগ নিয়েছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। গতকাল শুক্রবার গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরী একটি গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন। উল্লেখ্য, জাফরুল্লাহ চৌধুরী নিজেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্লাজমা নিয়েছেন।

তিনি বলেন, প্লাজমা একটি প্রতিষেধক। যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের রক্ত থেকে প্লাজমা প্রতিষেধক তৈরি করা হয়। আমরা (গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র) এ রকম একটি প্লাজমা ব্যাংক করতে চাই। এজন্য আমরা কাজ শুরু করেছি। সবার সহযোগিতা আমরা চাই। ‘ঢাকা মেডিকেল কলেজের অধ্যাপক মহিউদ্দিন আহমেদ খান, শিশু হাসপাতালের ডা. হামিদ রয়েছেন। এরা মহৎ কাজ করছেন। তাদের নিয়ে আমরা নগর হাসপাতালে খুব বড় আকারে এটা করতে চাই। যাতে দিনে ১০০ মানুষকে আমরা প্লাজমা দিতে পারি। প্লাজমা থেরাপিতে উপকার পেয়েছেন জানিয়ে জাফরুল্লাহ বলেন, আমার করোনাভাইরাস পজিটিভ শনাক্ত হওয়ার পর অধ্যাপক মহিউদ্দিন খান ফোন করে প্লাজমা থেরাপি নেওয়ার পরামর্শ দেন। এরপর আমি প্লাজমা নিই। ডিএমসির সরকারের ট্রান্সমিশন থেকে আমি এটা পেয়েছি। আমি এই থেরাপিতে উপকার পাচ্ছি।

প্লাজমা থেরাপি ম্যাজিকের মতো কাজ করে। আমি নিজে নিয়ে এটা বুঝতে পারছি। আক্রান্ত হওয়ার পর বেশ দুর্বল অনুভব করেছিলাম।

প্লাজামা নেওয়ার পর ভালো অনুভব করছি।

 

"