যশোরে ছাত্রাবাসে অভিযান অস্ত্র-মাদকসহ আটক ৩

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০

যশোর প্রতিনিধি

যশোরে এক ছাত্রাবাসে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র, গুলি, বোমা ও মাদক উদ্ধার এবং তিন ছাত্রকে আটক করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার রাতে শহরতলি শেখহাটির আলোচিত কাজী আলমের মালিকানাধীন কাজী ছাত্রাবাস থেকে এদের আটক করা হয়। রাতভর অভিযান শেষে গতকাল বুধবার দুপুরে ফের তল্লাশি কার্যক্রম চালানো হয়। আটকরা হলেন যশোর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার আনন্দবাস গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে তৌফিক ইসলাম, চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ও সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার বোরাখারাটি গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে আবু হেনা রোকন এবং মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার আনন্দবাস গ্রামের ওসমান আলীর ছেলে ও কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রাফিউন। পুলিশের দাবি, ওই ছাত্রাবাসটি সন্ত্রাসী কাজী জুয়েল ও তার সহযোগীদের গোপন আস্তানা এবং অস্ত্রভান্ডার হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছিল। এ ছাড়াও সেখান থেকে অস্ত্র ও মাদক চোরাচালানের সিন্ডিকেট পরিচালনা করা হতো।

যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গোলাম রব্বানি শেখ বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে শেখহাটির কাজী ছাত্রাবাসে অভিযান পরিচালনা করি। এ সময় ছাত্রাবাসের একটি কক্ষ থেকে একটি পিতলের শটগান, একটি ওয়ান শুটারগান, পাঁচ রাউন্ড গুলি, পাঁচটি বোমা, তিনটি চাকু, দুটি রামদা, ৯টি রড, এক বোতল মদ, পাঁচটি খালি মদের বোতল, ১০০ পিস ইয়াবা ও কয়েক পুঁটলা গাঁজা ও দুটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়। একই সঙ্গে ওই কক্ষ ব্যবহারকারী তিন শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়।

গোলাম রব্বানী শেখ আরো বলেন, উদ্ধার অস্ত্রগুলোর মূল মালিক শেখহাটি এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও বাহিনী প্রধান জুয়েল কাজীর। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সে পালিয়ে গেছে। আটকদের সঙ্গে তাকেও মামলার আসামি করা হবে।

 

"