জয়পুরহাটে ২২ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ

প্রকাশ : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০

জয়পুরহাট প্রতিনিধি

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে ব্যবসায়ীর ২২ লাখ ৫০ হাজার টাকা ছিনতাই হয়েছে। পাঁচবিবি উপজেলার ভুঁইডোবা গ্রামের আবু তালিব গত বুধবার জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। তার অভিযোগ বিজিবি সদস্যরা এই টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, পাঁচবিবি উপজেলার কয়া সীমান্ত এলাকার চাতাল ব্যবসায়ী বদিউজ্জামানের ছেলে জয়পুরহাট চেম্বারস অ্যান্ড কমার্সের সদস্য আবু তালিব তার বাবার ব্যবসা পরিচালনা করেন। গত সোমবার দুপুরে পাঁচবিবি জনতা ব্যাংকে সিসি অ্যাকাউন্টে ২২ লাখ ৫০ হাজার টাকা জমা দেওয়ার জন্য চাতালের কর্মচারী মোর্শেদের হাতে পাঠিয়ে দেয়। একটু পরেই মোর্শেদ মুঠোফোনে আবু তালিবকে বলেন, আটাপাড়া ক্যাম্পের বিজিবি সদস্যরা টাকার ব্যাগ আমার নিকট থেকে ছিনিয়ে নিয়ে চেঁচড়া সীমান্তের দিকে যাওয়ার সময় আরো কয়েকজন বিজিবি সদস্য আসে এবং টাকার ব্যাগ নিয়ে ক্যাম্পে ফিরে যায়। তখন ব্যবসায়ী আবু তালিব এলাকার স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ এলাকার গণ্যমান্য লোকজন নিয়ে আটাপাড়া ক্যাম্পে যায়। ক্যাম্পের ডিউটিরত বিজিবির সদস্যর নিকট জানতে চাওয়া হয় ব্যবসায়ীর টাকা কেন ছিনিয়ে নিলেন? এমন প্রশ্নে ডিউটিরত বিজিবি সদস্য বলেন, স্যার বাহিরে আছে আমি কিছু জানি না। সংশ্লিষ্টদের ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য গত ১৯ ফেব্রুয়ারি জয়পুরহাট জেলা প্রশাসক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেন আবু তালিব।

আটাপাড়া ক্যাম্পের দায়িত্বরত কমান্ডার এ বিষয়ে নায়েক সুবেদার আবু সাঈদ বলেন, ভারত সীমান্ত থেকে বালতিতে করে একজন মহিলা নদীর পাড় দিয়ে গোসল করতে আসছিল। সেখানে দায়িত্বে বিজিবি সদস্যেকে দেখেই মহিলাটি বালতি ফেলে দিয়ে দৌড়ে গ্রামের মধ্যে ঢুকে যায়। তখন বিজিবি সদস্যরা বালতিতে একটি কালো পলিথিনের প্যাকেট দেখতে পায়। তাৎক্ষণিক ক্যাম্পে খবর দিলে বিজিবির ক্যাম্প কমান্ডারসহ অন্য সদস্যরা ঘটনাস্থলে যান ও ঊর্ধ্বতনকে খবর দেয় এবং এলাকাবাসীদের নিয়ে ভিডিও করে সিজার লিস্টের মাধ্যমে টাকাগুলো কাস্টমসে জমা দেওয়া হয়েছে। বিজিবির বিরুদ্ধে অভিযোগ সত্য নয়, মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

জয়পুরহাট জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাকির হোসেন এ ব্যাপারে বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। বিজিবির ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হবে। তারা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে জেলার সমন্বয়ে ও আইনশৃঙ্খলা মিটিংয়ে এ বিষয়ে আলোচনা করা হবে এবং অভিযোগকারীরা আদালতে মামলা করতে পারে বলেও জানান তিনি।

 

"