পুলিশ হয়ে ইয়াবা কারবার, বাহিনীর হাতেই ধরা!

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি

গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার আনাচে-কানাছে ইয়াবা ব্যবসা করে বেড়াতেন তিনি। পরিচয় তার পুলিশ কনস্টেবল। এই পরিচয়ে দীর্ঘদিন ইয়াবা বেচে ভালোই চলছিল তার; গড়ে তুলেছিলেন একটি দলও। কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না। নিজ বাহিনীর হাতেই ধরা পড়লেন তিনি। গত শুক্রবার রাতে কালীগঞ্জ থানার ওসি এ কে এম মিজানুল হকের হাতে ২৫ পিস ইয়াবাসহ আটক হন। তার নাম মাহমুদুল হাসান ওরফে সৈকত। কালীগঞ্জের জামালপুর ইউনিয়নের ছৈলাদী গ্রামের এস এম মনির উদ্দিন শেখের ছেলে। তিনি নরসিংদী পুলিশ লাইনে কর্মরত থাকলেও সেখানে তার উপস্থিতি নেই দীর্ঘদিন।

জামালপুর ইউপির চেয়ারম্যান ফারুক মাস্টার জানান, সৈকত স্থানীয়ভাবে ইয়াবা ব্যবসা করতেন। পুলিশে চাকরি করলেও দীর্ঘ সময় ছিলেন কর্মস্থলে অনুপস্থিত। সৈকত শুধু নিজে নয় তার নেতৃত্বে স্থানীয়ভাবে গড়ে তুলেছিলেন ইয়াবা বেচাকেনার চক্র। তবে সাধারণ মানুষ তাকে কিছুই বলতে পারত না। কারণ তিনি পুলিশ। তার ব্যাপারে আমরা থানায় জানিয়েছিলাম। এ কারণেই তার প্রতি থানা পুলিশের নজরদারি ছিল। কিন্তু তিনি বুঝতে পারেননি। শুক্রবার রাত ১০টার দিকে নিজ বাড়ির পাশের একটি কালভার্টে বসা অবস্থায় তাকে থানার এসআই সুলতান উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ আটক করেন। এ সময় তিনি পালানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। পরে তার দেহ তল্লাশি করে ২৫ পিস ইয়াবা জব্দ করে তাকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

কালীগঞ্জ থানার ওসি এ কে এম মিজানুল হক বলেন, এ ব্যাপারে থানায় তার বিরুদ্ধে একটি মাদক মামলার পর ওই মামলায় তাকে গতকাল শনিবার দুপুরে গাজীপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে।

 

"