কুষ্টিয়ায় পাচারকালে স্বর্ণসহ একজনকে আটক বিজিবির

প্রকাশ : ১০ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

কুষ্টিয়ার মিরপুরে ৪৭ বর্ডার গার্ড (বিজিবি) ব্যাটালিয়নের অভিযানে ৫০০ গ্রাম ওজনের স্বর্ণের সাতটি বারসহ তাওয়াবুর রহমান নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে। গতকাল শনিবার ভোর ৫টায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা মেহেরপুরগামী যাত্রীবাহী এসবি পরিবহন বাসে তল্লাশি চালিয়ে এই স্বর্ণ উদ্ধার এবং জড়িত অভিযোগে তাওয়াবুর (৪২) নামের ওই ব্যক্তিকে আটক করে বিজিবির টহল দল। আটক তাওয়াবুর মেহেরপুর জেলার শুভরাজপুর গ্রামের তরিকুল ইসলামের ছেলে। ৪৭ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের কমান্ডার লে. কর্নেল রফিকুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ভারতে স্বর্ণ পাচার বিষয়ক গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মেহেরপুরগামী ওই বাসে তল্লাশি চালানো হয়। ভোর ৫টার সময় কুষ্টিয়া-মেহেরপুর সড়কের বিজিবি সেক্টরের ২নং গেটের সামনে ওই বাসে তল্লাশি অভিযান চালানো হয়। এ সময় তাওয়াবুরের দেহে বিশেষভাবে রাখা ৭টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত স্বর্ণসহ আটক তাওয়াবুরকে মিরপুর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত ৯ অক্টোবর ভোরে একইভাবে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহী জে আর পরিবহন থেকে ৭৫০ গ্রাম স্বর্ণসহ এক ব্যক্তিকে আটক করে বিজিবি। ৪৭ (বিজিবি) কমান্ডার লে. কর্নেল রফিকুল আলম বলেন, আটকৃতদের স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে ধারণা করা হচ্ছে পাচারকারীরা ভারত থেকে গরু, মাদকসহ যেসব বিভিন্ন জিনিস কালোবাজারি করছে তার মূল্য হিসেবে টাকার বদলে স্বর্ণ বিনিময় করে পরিশোধ করছে। এভাবে দেশের বিভিন্ন রুট হয়ত ব্যবহার হচ্ছে। আর যাদের ধরা হচ্ছে তারা জাস্ট ক্যারিয়ার মাত্র। এরা কিছু টাকা পয়সার বিনিময়ে এগুলো বহন করে নির্ধারিত জায়গায় পৌঁছে দিচ্ছে। এরা নিজেরাও জানে না যে মূল পাচারকারী কে। এত বেশি ভায়া হয়ে পাচারকারীরা কাজ করে যেখানে একজনের পরিচয় অন্যরা জানে না। ফলে মূল পাচারকারীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছে।

"